পাতা:ষোল আনি (জলধর সেন).djvu/১৪১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ষোল-অমানি আলোর দিকে ধরিয়া দেখিলেই তাহা স্পষ্ট দেখিতে পাইবেন। তথন জানিতে পারিবেন যে, যখন এই কাগজখানি প্রস্তুত হইয়াছে, তাহার পাঁচ বৎসর পূৰ্ব্বে এই দলিল লেখাপড়া হইয়াছে। অপর পক্ষ বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করিয়া সকল দিকই ঠিক করিয়াছিলেন, কিন্তু ঐ একটী বিষয়ে দৃষ্ট করেন নাই।” সমস্ত আদালত শুদ্ধ লোক নিস্তব্ধ হইয়া গেল। বিচারক মহোদয় কাগজখানি বিশেষ ভাবে পরীক্ষা করিয়া বলিলেন “হা, কাগজখানি ‘মিল হইতে প্রস্তুত হইয়া বাহির হইবার পাঁচ বৎসর পূর্বেই দলিলখানি লিখিত হইয়াছিল।” এই বলিয়া তিনি দলিলথানি সাত-আনির উকিল বাবুর দিকে অগ্রসর করিয়া বলিলেন “আপনি একবার স্বচক্ষে পরীক্ষা করিয়া দেখিতে পারেন।” সাত-আনির উকিল বাবু আর হাত বাড়াইতে পারিলেন না। তখন জজ বাহাদুর বলিলেন “এমন পাকা হুসিয়ায় জমিদার এমন কাচা কাজটা করিয়া ফেলিয়াছেন ; ইহা নিতান্তই গ্রহ-বৈগুণ্য বলিতে হইবে । উপস্থিত মোকদ্দমার বিচার আপাততঃ মুলতবী রহিল। আমি সাত-আনির জমিদার মনোহর চট্টোপাধ্যায়কে দলিল জাল করার অপরাধে ফৌজদারী সোপর্দ করিলাম।” সে দিনের মত আদালতের কার্য্য শেষ হইল । ১৩২