পাতা:ষোল আনি (জলধর সেন).djvu/১৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ষোল-তমালি Y.' o, ...’ পরদিন সন্ধ্যার મેં હૈં:ફિન્નેિ કં আসি তাহাকে আর সাত-আনিতে যাইতে দেওয়া হইল না—সে বা ছাঁ যেমন বন্ধ ও প্রহরী-বেষ্টিত হইয়াছিল, তেমনই থাকিল । সিদ্ধেশ্বর হরিহরকে সমস্ত কথাই বলিলেন ; পতৃশোকাকুল পুত্রকে যেমন করিয়া সাম্বন দিতে হয়, তাঙ্গাই দিলেন । রমীসুন্দরী ও তাঁহাকে অনেক উপদেশ দিলেন। সেই রা এতেই স্থির হইল, পরদিন প্রাতঃকালে ঐ অবস্থাতেই হরিহরকে সঙ্গে করিয়া সিদ্ধেশ্বর জেলার মাগিষ্ট্রেট সাহেবের সহিত সাক্ষাং করিতে যাইবেন । হরিহর আইন-অনুসারে এখনও নাবালক ; অন্ন কয়েকমাস পরেই সে সাবালক হবে । পাছে নাবালকের সম্পত্তি জিনিসপত্র, জমিদারীর কাগজপত্র কোন প্রকারে স্ত: পূরিত বা লুষ্ঠিত হয়, এই ভয়েই রমাসুন্দরী সাত আনির বাড়ী সম্বন্ধে বিশেষ ব্যবস্থা করিয়াছিলেন । হরিহরকে লইয়া সিদ্ধেশ্বর পরদিনই জেলায় চলিয়৷ .গ:লন এবং র্তাহীদের উকিল বাবুকে সঙ্গে লইয়া মাজিষ্ট্রেট সাহেবের কঠীতে গেলেন । সিদ্ধেশ্বরের সচিত মাজিষ্ট্রেট সাহেবের বিশেষ পরিচয় ছিল ; সাহেব তাহাকে স্নেহ করিতেন, এবং জেলার মধ্যে একজন শিক্ষিত ও সচ্চরিত্র জমিদার বলিয়া জানিতেন। কুঠী ও পৌঁছিয়া ংবাদ দিবা মাত্র মাজিষ্ট্রেট সাহেব তাহাদিগকে ডাকিয়' পাঠাইলেন ; এবং সিদ্ধেশ্বরের মুখে সমস্ত কথা শুনিয়া বলিলেন "আপনার মাত সাত-আনি সম্বন্ধে যে ব্যবস্থা করিয়াছেন, তাহা শুনিয়া আমি বিশেষ আনন্দ লাভ করিলাম । তিনি বেশ কাজ করিয়াছেন । ➢vöዓ