পাতা:ষোল আনি (জলধর সেন).djvu/১৬২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ষোলে-তালি রমামুন্দরী বলিলেন “এর থেকে ও কম বয়সে বুদ্ধদেব, চৈতন্যদেব সংসার ত্যাগ করেছিলেন। সিধু যদি সত্যিসততে সে পথ নিতে পারে, তা হলে আমাদের বংশ পবিত্র হয়ে যাবে ” মানদা বলিলেন “দিদি ! তুমিই ধষ্ঠ ! অনেক ছেলের সপ্ল্যাসের কথা শুনেছি, পড়েছি ও ; সকলেই গোপন সংসার ত্যাগ করেছিলেন ; এমন যে বুদ্ধদেব, চৈতন্যদেব তাদের ও রাত্রি কালে চুপে চুপে পালিয়ে যেতে হয়েছিল । কিন্তু, তুমি কি করন্থ দদি ! তুমি নিজ হাতে ছেলেকে সন্ন্যাসী সাজিয়ে দিচ্ছ। এ কথন দেখি নাই । এমন মা না হলে কি এমন ছেলে হয় ।” রমাসুন্দরী বলিলেন “শোন মানদা, আমি ছন্দুেকে সন্ন্যাসী সাজিয়ে দিচ্ছিনে ; ভগবান সাজিয়ে দিয়েছেন। তোর আশ্চর্য্য বোধ হচ্চে যে, আমি সিদ্ধেশ্বরকে আবার বিবাহ করবার আদেশ দিলাম না কেন ? আমি তা পারি না । স্ত্রীলোক স্বামী । মৃত্যুতে চির-বৈধব্য গ্রহণ করবে ইহা আমাদের শাস্ত্রের বিধান ; আমি সে বিধান মানি ; এবং তার সঙ্গে-সঙ্গে এ কথাও আমি মানি যে, বাল-বিধবার পুনরায় বিবাহ হওয়া উচিত। যে মেয়ে স্বামী কি, তা চিন্‌ল না, তার পুনরায় বিবাহ হওয়া কৰ্ত্তব্য । আমি স্ত্রীলোকের সম্বন্ধে যা মানি, পুরুষের সম্বন্ধেও তাই মনি মানদা ! আমার ছেলের বয়স যদি আজ পনর বৎসর হোতে, আমার বেীমা যদি দশ বছরে মারা যেতেন, আমি ছেলেকে পুনবন্ধু বিবাহ দিতাম ; কিন্তু, তা ত হয় নাই। আমার সিধুর বয়স হয়েছে ; সে স্ত্রী কি, তা জেনেছিল ; স্বামী-স্ত্রীতে অনেকদিন গৃহস্থ ধৰ্ম্ম পালন ン Qいひ