পাতা:ষোল আনি (জলধর সেন).djvu/৬৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
ষোল-আনি
 

ঘটক আর অখিল পাল, দুই জনই ছোট-কর্ত্তা মনোহর বাবুর মোসায়েব।

মনোহর বাবু বলিলেন “তাই ত হে, এখন কি করা যায় বল ত? এমন অনাচার, এমন জাতনাশের কাণ্ড ত চুপ করে বসে দেখা যায় না। এ কি আর গোপন থাক্‌বে? তখন—তখন যে দেশের মধ্যে মুখ দেখান যাবে না; কঘরে হতে হবে। সিধুটাকে ত বড় ভাল ছেলে ব’লেই জানি। লেখা-পড়া শিখেচে, সবগুলো পাশ দিয়েছে। ওদের সঙ্গে বিষয়-আশয় নিয়ে বিবাদ, মামলা-মোকদ্দমা থাক্‌লেও সিধুকে আমি বড়ই ভাল বাসতাম। সেও অামার খুব বাধ্য। যা শত্রুতা করে, সে ত ওর মা। সিধু কাজকর্ম্ম কিছুই দেখে না।”

ঘটক বলিল “যা বলেছেন কর্ত্তা, সিধু বাবু খুব ভাল ছেলে। এই আমরা যে সামান্য লোক, আমাদের সঙ্গেও দেখা হ’লে কেমন হেসে কথা বলেন, ছেলেপিলের কথা জিজ্ঞাসা করেন। কর্ত্তাকেও খুব ভক্তি-শ্রদ্ধা করেন।”

“তা ত জানি হে! কিন্তু উপস্থিত এ ব্যাপারে সিধু যদি একটু শক্ত না হয়, তা হলে তার সঙ্গেই বা সম্বন্ধ রাখা যায় কি করে। আর তাও বলি, তুই এত বড় ছেলে, বয়সও প্রায় সাঁইত্রিশ অাটত্রিশ হ’তে গেল; লেখা-পড়াও যথেষ্ট শিখেছিস্‌, বুদ্ধি-বিবেকটাও আছে; তুই এমন করে মায়ের আঁচল ধরে থাকিস্‌ কেন? যদ্দিন নাবালক ছিলি, ততদিন না হয় কথা ছিল না। এখন সাবালক হয়েছিস্‌, জমিদারীতেও নামজারি করিয়ে নিয়েছিস্‌; এখন নিজে

৫৭