পাতা:সংকলন (১৯২৬) - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৭৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পাগল শব্দটা আমাদের কাছে ঘণার শব্দ নহে। খেপা নিমাইকে আমরা খেপা বলিয়া ভক্তি করি—আমাদের খেপা-দেবতা মহেশ্বর। প্রতিভা খেপামির একপ্রকার বিকাশ কি না, এ কথা লইয়া য়রোপে বাদানবোদ চলিতেছে— কিন্তু আমরা এ কথা স্বীকার করিতে কুণ্ঠিত হই না। প্রতিভা খেপামি বইকি, তাহা নিয়মের ব্যতিক্ৰম, তাহা উলটপালট করিতেই আসে- তাহা আজিকার এই খাপছাড়া সন্টিছাড়া দিনের মতো হঠাৎ আসিয়া যত কাজের লোকের কাজ নষ্ট করিয়া দিয়া যায়—কেহ-বা তাহাকে গালি পাড়িতে থাকে, কেহ-বা তাহাকে লইয়া নাচিয়া কুদিয়া অস্থির হইয়া উঠে। ভোলানাথ, যিনি আমাদের শাস্ত্রে আনন্দময়, তিনি সকল দেবতার মধ্যে এমনি খাপছাড়া। সেই পাগল দিগম্ববরকে আমি আজিকার এই ধৌত নীলাকাশের রৌদ্রপলাবনের মধ্যে দেখিতেছি। এই নিবিড় মধ্যাহের হৃৎপিন্ডের মধ্যে তাঁহার ডিমি-ডিমি ডমর বাজিতেছে। আজ মৃত্যুর উলঙ্গ শত্রমাতি’ এই কমনিরত সংসারের মাঝখানে কেমন নিস্তব্ধ হইয়া দড়িাইয়াছে। ভোলানাথ, আমি জানি, তুমি অদভুত। জীবনে ক্ষণে ক্ষণে অদ্ভুত রপেই তুমি তোমার ভিক্ষার ঝলি লইয়া দাঁড়াইয়াছ। একেবারে হিসাবকিতাব নাস্তানাবাদ করিয়া দিয়াছ। তোমার নন্দীভূগীর সঙ্গে আমার পরিচয় আছে। আজ তাহারা তোমার সিদ্ধির প্রসাদ যে এক ফোঁটা আমাকে দেয় নাই তাহা বলিতে পারি না— ইহাতে আমার নেশা ধরিয়াছে, সমস্ত ভন্ডুল হইয়া গিয়াছে, আজ আমার কিছুই গোছালো নাই। f আমি জানি, সখে প্রতিদিনের সামগ্রী, আনন্দ প্রতাহের অতীত। সখি শরীরের কোথাও পাছে ধলো লাগে বলিয়া সংকুচিত, আনন্দ ধলোয় গড়াগড়ি দিয়া নিখিলের সঙ্গে আপনার ব্যবধান ভাঙিয়া চুরমার করিয়া দেয়; এইজন্য সখের পক্ষে ধলা হেয়, আনন্দের পক্ষে ধলা ভূষণ। সুখ পাছে কিছর হারায় বলিয়া ভীত, আনন্দ যথাসব সব বিতরণ করিয়া পরিতৃপ্ত : এইজন্য সখের পক্ষে রিক্ততা দারিদ্র্য, আনন্দের পক্ষে দারিদাই ঐশ্বর্য। সখি ব্যবস্থার বন্ধনের মধ্যে আপনার শ্রীট কুকে সতকভাবে রক্ষা করে, আনন্দ সংহারের মুক্তির মধ্যে আপন সৌন্দয়াকে উদারভাবে প্রকাশ করে; এইজন্য সুখ বাহিরের নিয়মে বন্ধ, আনন্দ সে বন্ধন ছিন্ন করিয়া আপনার নিয়ম আপনিই সন্টি করে। সখ সন্ধাটুকুর জন্য তাকাইয়া বসিয়া থাকে, আনন্দ দঃখের বিষকে অনায়াসে পরিপাক করিয়া ফেলে; এইজন্য কেবল ভালোটাকুর দিকেই সখের পক্ষপাত, আর আনন্দের পক্ষে ভালোমন্দ দুইই সমান। এই সন্টির মধ্যে একটি পাগল আছেন, যাহা-কিছু অভাবনীয় তাহা