পাতা:সংকলন (১৯২৬) - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৮২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


이 সংকলন কিন্তু তবুও পশ্চিমে যে শরৎ বাপের ঘোমটায় মুখ ঢাকিয়া আসে, আর আমাদের ঘরে যে শরৎ মেঘের ঘোমটা সরাইয়া পৃথিবীর দিকে হাসিমুখখানি নামাইয়া দেখা দেয়, তাদের দইয়ের মধ্যে রপের এবং ভাবের তফাত আছে। আমাদের শরতে আগমনীটাই ধয়া। সেই ধয়াতেই বিজয়ার গানের মধ্যেও উৎসবের তান লাগিল। আমাদের শরতে বিচ্ছেদবেদনার ভিতরেও একটা কথা লাগিয়া আছে, যে, বারে বারে নতন করিয়া ফিরিয়া ফিরিয়া আসিবে বলিয়াই চলিয়া যার—তাই ধরার আঙিনায় আগমনীগানের আর অন্ত নাই। যে লইয়া যায় সেই আবার ফিরাইয়া আনে। তাই সকল উৎসবের মধ্যে বড়ো উৎসব এই হারাইয়া ফিরিয়া পাওয়ার উৎসব। কিন্তু পশ্চিমে শরতের গানে দেখি পাইয়া হারানোর কথা। তাই কবি গাহিতেছেন, ‘তোমার আবিভাবই তোমার তিরোভাব । যাত্রা এবং বিদায় এই তোমার ধয়া; তোমার জীবনটাই মরণের আড়ম্বর; আর তোমার সমারোহের পরম পণতার মধ্যেও তুমি মায়া, তুমি সবগুন। আশ্বিন ১৩২২