পাতা:সংকলন (১৯২৬) - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


s Qや সংকলন এই প্রথম দেখলাম, আকাশের আদি-অন্ত নেই, জনহীন মাঠ দিগদিগন্ত ব্যাপ্ত করে হা হা করছে— কোথায় দটি ক্ষুদ্র গ্রাম, কোথায় এক প্রান্তে সংকীর্ণ একটা জলের রেখা। কেবল নীল আকাশ এবং ধসের পথিবী— আর তারই মাঝখানে একটি সঙ্গীহীন গ্যহহীন অসীম সন্ধ্যা, মনে হয় যেন একটি সোনার-চেলি-পরা বধ অনন্ত প্রান্তরের মধ্যে মাথায় একটুখানি ঘোমটা টেনে একলা চলেছে; ধীরে ধীরে কত শতসহস্র গ্রাম নদী প্রান্তর পবীত নগর বনের উপর দিয়ে যুগযুগান্তরকাল সমস্ত পথিবীমণ্ডলকে একাকিনী লাননেত্রে, মৌনমখে, শ্রান্তপদে প্রদক্ষিণ করে আসছে। তার বর যদি কোথাও নেই তবে তাকে এমন সোনার বিবাহবেশে কে সাজিয়ে দিলে! কোন অন্তহীন পশ্চিমের দিকে তার পতিগহে!