পাতা:সংকলন (১৯২৬) - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৬০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


•68 সংকলন ব্যক্তিগতভাবে প্রত্যেকের পক্ষে ও সাধারণভাবে বিশেবর পক্ষে মঙ্গলকর হইয়া ৮ ਚੋਂ । আমাদের সমাজে প্রত্যেকের সহিত সমস্ত দেশের একটা প্রাতাহিক সম্বন্ধ কি বধিয়া দেওয়া অসম্ভব। প্রতিদিন প্রত্যেকে স্বদেশকে সমরণ করিয়া একপয়সা বা তদপেক্ষা অলপ, একমষ্টি বা অধমষ্টি তন্ডুলও স্বদেশবলিস্বরপে উৎসগ করিতে পারবেন না? সবদেশের সহিত আমাদের মঙ্গলসম্মবন্ধ—সে কি আমাদের ব্যক্তিগত হইবে না। আমরা কি সবদেশকে জলদান বিদ্যাদান প্রভৃতি মঙ্গলকম গলিকে পরের হাতে সমপণ করিয়া দেশ হইতে আমাদের চেষ্টা চিন্তা ও হাদয়কে একেবারে বিচ্ছিন্ন করিয়া ফেলিব। গবমেণ্ট আজ বাংলাদেশের জলকীট-নিবারণের জন্য পঞ্চাশ হাজার টাকা দিতেছেন— মনে করন, আমাদের আন্দোলনের প্রচণ্ড তাগিদে পঞ্চাশ লক্ষ টাকা দিলেন এবং দেশে জলের কষ্ট একেবারেই রহিল না--তাহার ফল কী হইল। তাহার ফল এই হইল যে, সহায়তালাভ-কল্যাণলাভের সত্রে দেশের যে হাদয় এতদিন সমাজের মধ্যেই কাজ করিয়াছে ও তৃতি পাইয়াছে, তাহাকে বিদেশীর হাতে সমপণ করা হইল। যেখান হইতে দেশ সমস্ত উপকার পাইবে সেইখানেই সে তাহার সমস্ত হাদয় স্বভাবতই দিবে। দেশের টাকা নানা পথ দিয়া নানা আকারে বিদেশের দিকে ছটিয়া চলিয়াছে বলিয়া আমরা আক্ষেপ করি— কিন্তু দেশের হদয় যদি যায়, দেশের সহিত যত-কিছ কল্যাণসম্বন্ধ একে একে সমস্তই যদি বিদেশী গবমেন্টেরই করায়ত্ত হয়, আমাদের আর কিছুই অবশিষ্ট না থাকে, তবে সেটা কি বিদেশগামী টাকার স্রোতের চেয়ে অলপ আক্ষেপের বিষয় হইবে। এইজন্যই কি আমরা সভা করি, দরখাস্ত করি, ও এইরপে দেশকে অন্তরে-বাহিরে সপণভাবে পরের হাতে তুলিয়া দিবার চেষ্টাকেই কি বলে দেশহিতৈষিতা। ইহা কদাচই হইতে পারে না। ইহা কখনোই চিরদিন এ দেশে প্রশ্রয় পাইবে না—কারণ, ইহা ভারতবর্ষের ধর্ম নহে। বিদেশী চিরদিন আমাদের সবদেশকে অন্নজল ও বিদ্যা ভিক্ষা দিবে, আমাদের কতব্য কেবল এই যে, ভিক্ষার অংশ মনের মতো না হইলেই আমরা চীৎকার করিতে থাকিব ? কদাচ নহে, কদাচ নহে। সবদেশের ভার আমরা প্রত্যেকেই এবং প্রতিদিনই গ্রহণ করিব—তাহাতে আমাদের গৌরব, আমাদের ধম’। এইবার সময় আসিয়াছে, যখন আমাদের সমাজ একটি স্বহং স্বদেশী সমাজ হইয়া উঠিবে। সময় আসিয়াছে, যখন প্রত্যেকে জানিবে আমি একক নহি—আমি ক্ষুদ্র হইলেও আমাকে কেহ ত্যাগ করিতে পারবে না, এবং ক্ষুদ্রতমকেও আমি ত্যাগ করিতে পারিব না।