পাতা:সংবাদপত্রে সেকালের কথা প্রথম খণ্ড.djvu/১৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১২২2 মংবাদ পত্রে মেকালের কথ। ঘোল খায় কৃষ্ণদাস কড়ি দেয় নিধি। সেই মত মোর ভাগ্যে ঘটাইলা বিধি । নাহি ছুল্যাম নাহি পাল্যেম মুখ উদ্বীপন । রাবণ আজ্ঞাতে মারচ মজিল যেমন । রাবণ হরিল সীতা বদ্ধ মহোদধি। এই কৰ্ম্মে সেই মত ঘটাইল বিধি । না আইলে অধিকারী অধিক রুষ্ট হবে । এবার এখানে আইলে এবেট মারিবে । রাম মারে রাবণে মারে অবশু মরণ । দুই মতে দায়ে কাটে কুমুড়া যেমন ॥ দ্বারপাল কহিতেছে । শুনিয়া বৈষ্ণব বাক্য কহে দরোয়ান। এবার আমার হাতে হরাইবে প্রাণ ॥ সুন্দর করিল মুখ বিদ্যারে লইয়া। কোটালের যায় প্রাণ কিসের লাগিয়া ॥ বার২ মুরগীতে খায়ে যায় ধান । এইবার মুরগীর বধা যাবে প্রাণ ৷ ভণ্ডগুরুর লণ্ডচেলা হইয়াছে মেলা। নিত্য২ এই রূপ কর লীলা খেলা ৷ আমি জানি শিক্ষা পড়া শিখান গোসাই । শিক্ষা পড়া এত পোড়া আগে জানি নাই । আমার চৌকিতে পাখি এড়াইতে নারে । জানিলে কি ভণ্ড বেটা ফাকি দিতে পারে ॥ ( ৯ মার্চ ১৮২২ । ২৭ ফাল্গুন ১২২৮ ) বিজ্ঞাপনপত্র – শুনা গেল যে গত সপ্তাহে বিদেশস্থ ব্যক্তির প্রেরিত যে পত্র ছাপান গিয়াছে তাহাতে কেহ২ বিরক্ত হইয়াছেন। যিনি২ বিরক্ত হইয়া থাকেন তাহারদিগের উচিত হয় যে ইহার সদুত্তর লিখিয়া পাঠান পাঠাইলে আমরা দর্পণে অৰ্পণ করিব যেহেতুক সৰ্ব্বোপকারক সমাচার ছাপাই । কোন লোকের পক্ষীয় মহি তাহাতে যে কোন লোক আশ্চৰ্য্য প্রেরিত পত্র পাঠান তাহাতে আমরা তুষ্ট হইয়া ছাপাই । ( ৫ মার্চ ১৮২৫ । ২৫ ফাল্গুন ১২৩১ ) সমাচার দর্পণ প্রকাশক মহাশয়েযু - --রাঢ় দেশান্তর্গত ভদ্রবাট গ্রামের শ্রীনকড়ি চক্রবর্তী নামক এক ব্রাহ্মণ জাত্যংশে ও বিভাংশে নূনতাপ্রযুক্ত প্রথম কালাবধি বহুকালপৰ্য্যন্ত কাৰ্ত্তিকেয় ব্রত করিয়া শেষকালে কিঞ্চিৎ ধন সঙ্গতি হইলে ঐ ব্রতোদ্যাপন করিয়া সাংসারিক ব্রত করণ চেষ্টাতে অবশেষে প্রায়োবয়ঃশেষে দেশে বিদেশে মনোভিলাষে । ঘটক নিবাসে এক দিবস প্রত্যুষে উপস্থিত হইয়া কহিল যে ঘটক সিংহ মামা মহাশয় প্ৰণাম করি আমাকে চিনিতে পারেন ঘটক কহিলেন আইস বাপ তুমি আমার পেলারাম দাদার পুত্র তোমাকে না চিনিবার বিষয় কি । ভাল তোমার সন্তান কি নকড়ি কহিলেন মামা সে আশীৰ্ব্বাদ করেন নাই । ঘটক কহিলেন ভাল তবে দ্বিতীয় পক্ষে সংসার করণের বাধা নাই এমত অনেকেই করেন তোমার বয়স বা কি অনুমান পঞ্চাশের নূ্যন হইবে না । ইহার শাস্ত্রও আছে যে পঞ্চাশোৰ্দ্ধং বনং ব্রজেৎ। নকড়ি কহিলেন মামা দ্বিতীয় পক্ষের বিষয় কি প্রথম পক্ষই হয় নাই । ঘটক খেদ করিয়া কহিলেন হায়২ এমত