পাতা:সংবাদপত্রে সেকালের কথা প্রথম খণ্ড.djvu/১৭০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


$\లిపి সংবাদ পত্রে চেনকালের কথা কুতুহলে কলিকাতার কলুটােলার কোন এক নিজ কুটুম্বের সপ্তমবর্ষীয়া কঙ্কার ভাবি যৌবন জনপদাধিকার করণে বাঞ্ছিত হইয়া লাঞ্ছনা ভয়ে লুকাইয়া নিলজি সুসজ্জ মাধুর্য্য বেশ ধারণ করিয়া বাসরাবসরে সন্ধ্যোভরে আনন্দভরে কন্যাকৰ্ত্তার ঘরে গমন করিতেছিলেন ইতোমধ্যে ঐ বৃদ্ধের এই সম্বাদ তাহার অন্তরঙ্গ ও প্রতিবাসী বাবুবর্গের পাইয়া অাদেী কএকটি অস্থিচৰ্ম্মাবশিষ্ট উৎকৃষ্ট বেটুয়া অশ্ব ও তন্তোপরি নানাপ্রকার নিশান এবং কতকগুলিন বৈরাগী খোল করতাল ও রণ শিঙ্গাদির বাদ্যের দ্বারা গঙ্গাযাত্রার মমর্শন্তিক আয়োজন পুরঃসর গঙ্গানারায়ণ ব্ৰহ্মইত্যাদি নাম উচ্চারণ উচ্চৈঃস্বরে তাহার সমভিব্যাহারে জনেক যমদর্শক চিকিৎসক সহকারে অযাত্রা বরপাত্রের সহিত পথিমধ্যে মিলিয়া মুহুমুহুঃ বরের নাড়ী পরীক্ষা করত সঙ্কীৰ্ত্তন ও তৃণগুচ্ছের চামর ব্যজন করিতেই কন্যার বাটীতে উপস্থিত হইয়া দীপাদি নিৰ্ব্বাণ করিয়া কোলাহল করিতে লাগিলেন বিবাহ কাৰ্য্য সুন্দররাপে লগ্নস্ৰষ্ট হইয়া নিৰ্ব্বাহ পাইল ইহাতে বরপাত্রের রূপ লাবণ্যের প্রতি দৃষ্টিপাত ও তৎসমভিব্যাহাষ্ট্রে বাবুদিগের উৎপাতে কন্যার পিতা সীতার বনবাস স্মরণ করিয়া ক্রমদন করিতে লাগিলেন এবং প্রস্থতিপ্রভৃতি স্বজাতি স্ত্রীলোকের শিরে করাঘাত করিয়া খেদে ( ভালসাশ কাটম বসের বাটম আমারদের ঝিঃ তোমার কপালে বুড়া বর আমরা করিব কি: ) মেয়ালি শ্লোক স্মরণ পূর্বক কহিতে লাগিলেন যে হে বিধাতা এ কেমন বুড়া বর বুঝি ইহার কুন্তল দর্শনে স্বীয় মান্তাবলোকনে অভিমানে কালিমার গহিন মন আপন বর্ণ পরিমোচন করে এমত স্ববর্ণলতিকা স্থলোচনা সুনাসিক মেয়্যাটিকে একেবারে বিসর্জন করা গেল তাহাতে ঐ গুণনিধি বর রসিকতাপূর্বক কহিলেন বিসর্জনের বিষয় কি মেয়াটি কালক্রমে বিলক্ষণ উপার্জন করিবেন ইহাতে সকলেই নীরব থাকিলেন –তিং নাং ( ৩১ মে ১৮২৮ । ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১২৩৫ ) এক নবীন যোগির উপাখ্যান।—কোন এক নগরনিবাসি নবীন যোগী আপন শৈশবাবস্থায় অতিশয় স্থাপুরঃসর দেবস্থানে তদর্শনে যোগারাধনা করিত কিয়ৎ কালানন্তর যৌবনসম্পত্তি বিপত্তির মূল হইয়৷ নানা মুখাভিলাষে মত্ত কুরঙ্গের মত যৌবনতরঙ্গে বিবিধ রঙ্গভঙ্গে অনঙ্গসঙ্গে আপন সচঞ্চল মনকে নিক্ষেপ করিল। যোগবল নিৰ্ব্বল হইল তদৃষ্টে স্বগণ সজল নয়নে আক্ষেপ করিতে লাগিল ভিন্নগণ পরমাহলাদে গদগদ হইল নবীন যোগী সুহৃদগণের হিতবাক্য সদর্থ বোধ না করিয়া নিরর্থ জানিত। এক দিবস দেবযাত্রায় তদুপলক্ষে কোনস্থানে নিশিযোগে বহুতর নাটক এবং গায়কের সমারোহ হইয়াছিল নবীন যোগী তথায় গমনপূর্বক নানা কেলি কৌতুকে মৃত্যগীতাদি শ্রবণাবলোকনে সৰ্ব্বজন বেষ্টিত প্রফুল্লান্তঃকরণে পুনঃপুন ধন্যবাদ করিল। এতৎসময়ে নবীন যোগির এক প্রবীণ পরমার্থদশির তথায় তদর্শন মানসে সমাগম হইয়াছিল ইতোমধ্যে গুণনিধি যোগির সদ্ব্যবহার এরূপ মহৎ ব্যাপারে নিরীক্ষণ করাতে কিপর্য্যন্ত সন্তোষ হইল তাহ বর্ণনে বর্ণভাবপ্রযুক্ত লেখনী