পাতা:সংবাদপত্রে সেকালের কথা প্রথম খণ্ড.djvu/২৫৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সমগঞ্জ ఫ్ఫి4 হইয়াছে যাহার২ ইহাতে উপকার ও সাহায্য করণে ইচ্ছা হয় তাহার বেঙ্ক আপ বাঙ্গাল ও হিন্দুস্থান বেঙ্ক ও মিসিএরস কালবিন এণ্ড কোং সাহেবকে লিখিবেন ঐ সাহেব টাকা পাইয়া রসিদ দিবেন ॥ গবর্ণমেণ্ট গেজেট ॥ ( ৮ জুলাই ১৮২৬ । ২৫ আষাঢ় ১২৩৩ ) চিকিৎসালয়।—আমরা অতিশয় আহলাদপূর্বক প্রকাশ করিতেছি যে নেটৰ হাসপাতালের অর্থাৎ চিকিৎসালয়ের কৰ্ত্তারা গবৰ্ণমেণ্টের আজ্ঞানুসারে এতদেশীয় দীনদুঃখি পীড়িত লোকেরদের চিকিৎসার্থে দুই চিকিৎসালয় নিরূপিত করিয়াছেন বিশেষতঃ কলিকাতার গরাণহাটায় নং ৩২৭ বাটীতে এক ও চৌরঙ্গির পার্ক স্ত্রীটে নং ১০ বাটীতে এক । এই নিরূপিত স্থানেতে ১ আগস্ত তারিখ অবধি পীড়িত লোক গতমাত্র ঔষধ পাইবেক । ( ১৩ ফেব্রুয়ারি ১৮৩৯ । ৩ ফাল্গুন ১২৩৬ ) হাবড়ার হাসপাতাল –গত শনিবারে হাবড়ার হাসপাতালের ধনদাতার ও সাহায্যকারকেরদের প্রথম [ বার্ষিক ] সভা হয় । তাহাতে শ্ৰীযুত জান মাষ্টর সাহেব সভাপতি হইলেন এবং লিখিতব্য সাহেবলোকেরা আগামি বৎসরের কৰ্ম্মসম্পাদকের পদে নিযুক্ত হইলেন। বিশেষতঃ শ্ৰীযুত এস লাপ্রিমাদি ও শ্ৰীযুত ষ্টকর্ট সাহেব ও শ্ৰীযুত পাদরি হোম্স সাহেব ও শ্ৰীযুত বাবু মথুরানাথ মল্পিক ও শ্ৰীযুত পাদরি হপ সাহেব সেক্রেটরী কৰ্ম্মে নিযুক্ত হইলেন। ঐযুত ডাক্তর ষ্টুয়ার্ট সাহেব ঐ চিকিৎসালয়ের বার্ষিক বিবরণ প্রস্তাব করিলেন তদ্বারা দৃষ্ট হইল যে গত বৎসরে ছয় হাজার তিন শত তেইশ জন রোগ ব্যক্তি ঐ হাসপাতালে ঔষধাদি প্রাপ্ত হয় তাহার মধ্যে ৯২ জন ঐ চিকিৎসালয়ে বাস করিয়া স্বাস্থ্য হয়। অপর বিবি কুপরনামক এক স্ত্রীর এক বাঙ্গলা ঘর উত্তরাধিকারীভাবে গবর্ণমেণ্টে বাজে আপ্ত হইয়া গবর্ণমেণ্ট তাহা ঐ হাসপাতালের নিমিত্তে দান করিয়াছেন। গত বৎসরে ঐ চিকিৎসালয়ে কেবল সাড়ে চারি শত টাকা ব্যয় হয় এবং তাহার সংস্থান ছয় হাজার আট শত টাকা ফারগিসন কোম্পানির কুঠতে গচ্ছিত আছে। এত রোগি ব্যক্তির চিকিৎসাতে যে এত অল্প টাকা ব্যয় হয় তাহার কারণ এই যে গবর্ণমেণ্ট সকল ঔষধাদি বিনামূল্যে প্রদান করিলেন। কিন্তু গত অক্তোবর মাসঅবধি ঐ রূপ দান রহিত হইয়াছে। এই চিকিৎসালয় হওয়াতে দীনদরিদ্র লোকেরদের অত্যন্তোপকার হইতেছে এবং আপনারদের ভরসা হয় যে ইউরোপীয় ও এতদেশীয় দানশেও লোকেরা তাহাতে প্রচুর টাকা প্রদান করিবেন। ( ১৯ মে ১৮২১ । ৭ জ্যৈষ্ঠ ১২২৮ ) নূতন ছকুম – শহর কলিকাতাতে সংপ্ৰতি এই হুকুম প্রকাশ হইয়াছে যে দিবাভাগে শহরের মধ্যে হালালখোরের শেতখানা পরিষ্কার করিতে পারিবে না তাহার