পাতা:সংবাদপত্রে সেকালের কথা প্রথম খণ্ড.djvu/৫১৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সম্পাদকীয় 8*כו পৃ. ২১৯ — দেওয়ান রামলোচন ঘোষ । দেওয়ান রামলোচন ঘোষ পাথুরিয়াঘাটার ও জোড়াবাগানের ঘোষ-বংশের প্রতিষ্ঠাত । তিনি লেউ হেষ্টিংসের বিশ্বস্ত কৰ্ম্মচারী ছিলেন । ওয়ারেন হেষ্টিংসের প্রিয়পাত্র থাকায় তিনি হেষ্টিংসের দেওয়ান বলিয়াও পরিচিত ছিলেন । পৃ. ২২১ – জয়কৃষ্ণ সিংহ । ইনি জোড়াসাঁকে সিংহ-পরিবারের প্রতিষ্ঠাতা দেওয়ান শাস্তিরাম সিংহের পুত্র, নন্দলাল সিংহের পিতা, এবং স্বনাধন্ত কালীপ্রসল্প সিংহের পিতামহ । পৃ. ২২৪-নীলমণি মল্লিক । নীলমণি মল্লিক জীবনে বহু সংকৰ্ম্ম করিয়া গিয়াছেন। . তাহার সংক্ষিপ্ত জীবনকথা লোকনাথ ঘোষের গ্রন্থে ( ২য় খণ্ড, পৃ. ৫৬-৬৭ ) দ্রষ্টব্য । রাজা রাজেন্দ্র মল্লিক বাহাদুরই নীলমণি মল্লিকের পোষ্যপুত্র । পৃ. ২২৫–রুস্তমজী কাওয়াসজী । শ্ৰীযুত যোগেশচন্দ্র বাগল ‘ভারতবর্ষে’ ( চৈত্র ১৩৩৮ ; জ্যৈষ্ঠ ১৩৩৯ ) এবং মডার্ণ রিভিয়ু (জুলাই ১৯৩৩ ) পত্রে রুস্তমজী কাওয়াসজীর প্রামাণ্য চরিত-কথা প্রকাশ করিয়াছেন । পৃ. ২৩২–বৈদ্যনাথ মুখোপাধ্যায়। দেওয়ান বৈদ্যনাথ মুখোপাধ্যায় হাইকোর্টের বিচারপতি অমুকুলচন্দ্র মুখোপাধ্যায়ের পিতামহ । হিন্দু কলেজ প্রতিষ্ঠিত হইবার অল্পদিন পরেই বৈদ্যনাথের জ্যেষ্ঠপুত্র লক্ষ্মীনারায়ণ মুখোপাধ্যায় (অমুকুলচঞ্জের পিতা ) এই শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের সম্পাদক নির্বাচিত হইয়াছিলেন (ডিসেম্বর ১৮২২) । পৃ. ২৩৫–রাজকৃষ্ণ বাহাদুর । রাজ রাজকৃষ্ণ শোভাবাজারের মহারাজ নবকৃষ্ণ দেব বাহাদুরের পুত্র । ১৮১৫ সনে তিনি ‘কুলপ্রদীপ নামে একখানি পুস্তিকা পয়ার ছন্দে রচনা করিয়াছিলেন । র্তাহার মৃত্যুর পর তৎপুত্র কালীকৃষ্ণ বাহাদুর ১৮৩২ সনে ইহা প্রকাশিত করিয়াছিলেন । পুস্তকথানির আখ্যাপত্র এইরূপ : কুলপ্রদীপ ॥ | অর্থাৎ দক্ষিণরাঢ়স্থ কায়স্থ নবকুলবিশিষ্টাদানপ্রদানাংশ ক্রিয়াদি নানা আংশিক ঘটক কুলীন সজ্জন | সম্মত ৮ মহারাজা রাজকৃষ্ণ বাহাদুর | বিরচিত শোভাবাজারস্থ ষন্ত্রে তৎ । পুত্রেণ রাজ ত্রকালীকৃষ্ণ | বাহাদুরের প্রকাশিত: শকাব্দঃ ১৭৫৪ | The KULA-PRUDEEPA, or | The accounts of Kuleens, belonging To The Kaystha | Composed by the late | Maha-Raja Raj-Krishna Bahadur, and published by his son | Raja Kalee-Krishna Bahadur. | From the Sobha Bazar Press. | 1832. || পুস্তকখানি ২৪ পৃষ্ঠায় সম্পূর্ণ ; ২৩ পৃষ্ঠায় গ্রন্থকারের নাম ও রচনাকাল এইরূপ দেওয়া আছে – সিন্ধু বহ্নি সিন্ধু শশী শাক তিথি ত্রিয়োদশী পূর্ণ শশী পক্ষশশীবার। নভঃ পঞ্চ বিংশদিন পূৰ্ব্ব নব্য মতাধীন কুলপ্রদীপ গ্রন্থ গ্রন্থসার । নবকৃষ্ণ মহীপতি যশেতে পূরিত ক্ষিতি গোষ্ঠীপতি তাহার নন্দন । মহারাজ রাজকৃষ্ণ নবকুলে মহাতৃষ্ণ এই গ্রন্থ করিল রচন। কর্ণ স্বণ সমাজেতে হরি দেব বিধিমতে দেব বংশে দেবের সমান । গৌরবে গরিষ্ঠ অতি ইষ্ট পদে নিষ্ঠ মতি গোষ্ঠীপতি