পাতা:সংস্কৃত সাহিত্যের কথা - নিত্যানন্দ বিনোদ গোস্বামী.pdf/২৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

&- সংস্কৃত সাহিত্যের কথা বিখ্যাত নাগাজুন আচার্ষ দ্বিতীয় শতাব্দীতে মহাযান মত প্রবতন করেন । এই মত দেখতে দেখতে চারিদিকে ব্যাপ্ত হয়ে পড়ে। শক আর সিথিয়ন রাজারা এই মত গ্রহণ করায় ভারতবর্ষ ছাড়িয়ে বৌদ্ধমত দেশ বিদেশে চলে যায়। জৈন মত অবশু সে রকম ষায়নি। সংস্কৃত বৌদ্ধগ্রন্থের কতক পালি গ্রন্থের অনুবাদ কতক আবার স্বতন্ত্র । সংস্কৃতের মধ্যেও কতক খারাপসংস্কুতে লেখা কতক ভালো সংস্কৃতে লেখা । সংস্কৃত বৌদ্ধ বই অনেক লুপ্ত হয়ে গিয়েছে। তিব্বতী আর চীনে পণ্ডিতরা বহু বইয়ের যথাযথ অনুবাদ করে রেখেছিলেন । বতর্মান কালের অনুসন্ধানের ফলে সেই সব অনুবাদ আর কিছু কিছু মূল বইয়েরও সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। এগুলির সংখ্যাও কম নয়। চীন তিব্বতের মঠে এথনো নানা বিষয়ের অজ্ঞাত সংস্কৃত বই বতর্মান । এখন আবার যে সব ভালো বই লোপ পেয়েছে অথচ তার চীনে তিব্বতি অনুবাদ আছে, সেই অনুবাদ থেকে সেগুলিকে আবার সংস্কৃতে পরিণত করে ছাপাবার চেষ্টা চলছে। আয়ুৰ্বেদ ও অন্যান্য উপবেদ চার বেদের চার উপবেদ । আয়ুর্বেদ, ধনুর্বেদ, গান্ধৰ্ববেদ, আর শিল্পবেদ । কেউ কেউ শিল্পবেদের বদলে তন্ত্রশাস্ত্রকে বসান। এর মধ্যে সর্বাপেক্ষা উল্লেখযোগ্য আয়ুৰ্বেদ । অথর্ববেদে গাছগাছড়ার প্রচুর বর্ণনা আছে। এই আয়ুর্বেদের আটটি ভাগ বা অঙ্গ। অর্থাৎ আয়ুৰ্বেদ অষ্টাঙ্গ । সেগুলি এই—

  • U—Major surgery *itatto-Minor surgery কায় চিকিৎসা Yoful—Demonology