পাতা:সাংগ্রিলার মঠে - দেবপ্রসাদ সেনগুপ্ত.pdf/৪৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

সাংগ্রিলার মঠে এই পাহাড়ে দেশে প্রায় হাজার তিনেক লােকের বাস। আমরাই তাদের চালাই। কিন্তু আমাদের শাসনের মধ্যেও সংযম আছে। আপনি আশ্চর্য হচ্ছেন? হাঁ, শাসনের মধ্যেও আমরা অসংযমের পবিচয় দিইনে। ‘আমাদের প্রজাদের উপর খুব বেশি নিয়মানুগত্যের চাপ আমরা দিইনে এবং শাসনের সময়েও দয়া বা কঠোরতা এর কোনটারই আতিশয্য প্রকাশ পায় না। এতে প্রজারাও শান্তিতে আছে, আমাদেরও হাঙ্গামা কমে গেছে। আমাদের এখানকার সবাই মােটামুটি সৎ, মোটামুটি পরিশ্রমী এবং তা’তেই মােটামুটি খুসী। চাংএর কথা শেষ না হইতেই সুব্রত ফস্ করিয়া বলিয়া বসিল, ‘আপনাদের মঠের সন্ন্যাসীদেরও কি এই নিয়ম ? চাং শান্ত অথচ কঠিন স্বরে কহিলেন, ‘মাপ করবেন, এ বিষয়ে আমি কিছু বলতে পারবাে না। বিক্রমজিৎ এবং সুব্রত দুইজনেই বুঝিয়াছিল যে, এখানে এমন কতকগুলি জিনিষ আছে, যাহার সম্বন্ধে কৌতূহল হইলেও তাহ নিবৃত্ত করিবার পথ নাই; কারণ, জিজ্ঞাসা করিবার লােকের মধ্যে এক চাং। তিনি যে কোন্ কথার উত্তর দিবেন আর কোন্ কথার উত্তর দিবেন না, তাহা বলা শক্ত। তাই অনেক প্রশ্ন করিয়া তাহারা ঠিক মত উত্তর পায় নাই। কখনও বা অত্যন্ত ভাসাভাসা উত্তর পাইয়াছে। ৪২