পাতা:সাহিত্য-সাধক-চরিতমালা প্রথম খণ্ড.pdf/৫৫৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


३t* মদনমোহন তর্কালঙ্কার তাহার এবং গঙ্গাচরণ সেনের সবিশেষ যত্নে বহরমপুরে দাতব্য সমাজ স্থাপিত হয়। অনাথ-আতুরদের সাহায্যদানই এই সভার উদ্বেগু ছিল । তাহার জনহিতকর কার্য্য প্রসঙ্গে যোগেন্দ্রনাথ বিদ্যাভূষণ লিথিয়াছেন : কান্দী তর্কালঙ্কারের কীৰ্ত্তির চরমস্থান । কান্দীতে তিনি যৎকালে প্রথম আসেন তখন সেখানে রাস্তা, ঘাট, বিদ্যালয় প্রভৃতি কিছুই ছিল না। তিনি আসিয়া এই সকলের প্রথম স্থষ্টি করেন। মুরশিদাবাদের স্থায় কাশীতেও একটা অনাথমদির সংস্থাপন করেন।...বালিকাদিগের শিক্ষার নিমিত্ত এখানে একটা বালিকা বিদ্যালয় সংস্থাপন কবিয়াছিলেন।. তিনি স্বয়ং এই বিদ্যালয়ের তত্ত্বাণধারণ কবিতেন । ইহা ভিন্ন কান্দীর ইংরাজী বিদ্যালয় ও দাতব্য চিকিৎসালয়েরও ইনি স্বষ্টিকৰ্ত্ত । (পৃ. ২৪-২৫) কীৰ্ত্তি-কথা কলিকাতায় সংস্কৃত যন্ত্রের প্রতিষ্ঠা ১৮৪৭ খ্ৰীষ্টাব্দে মদনমোহনের উদ্যোগে কলিকাতায় সংস্কৃত যন্ত্রের প্রতিষ্ঠা হয় । বিদ্যাসাগর মহাশমু লিখিয়াছেন – যৎকালে আমি ও মদনমোহন তর্কালঙ্কার সংস্কৃত কলেজে নিযুক্ত ছিলাম ; তর্কালঙ্কারের উদ্যোগে, সংস্কৃতষ নামে একটি ছাপাখানা সংস্থাপিত হয় । ঐ ছাপাখানায়ু, তিনি ও আমি, উভয়ে সমাংশভাগী ছিলাম –‘নিস্কৃতিলাভপ্রয়াস', বিদ্যাসাগর-গ্রন্থাবলী--বিবিধ, পৃ. ৬৭৫ । সেকালে সংস্কৃত স্বন্ত্রের বিলক্ষণ প্যাতি ছিল । বহু উল্লেখযোগ্য গ্রন্থই এখানে মুদ্রিত হইয়াছিল । "কৃষ্ণনগরের রাজবাটীর মূল পুস্তক

  • 'cनांमधकां*', २६ भएछेtवब्र sw** ।

-*.