পাতা:সিতিমা.pdf/১৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
১১
সিতিমা

সিতিমা।  তবে আর ভালবাসা-বাসি চাস্‌নে।

[একজন দাসীর দ্রুত প্রবেশ]

কিরে ভয় পেয়েছিস্‌ যে!

দাসী।  আমি এমন তো আর দেখিনি!

পুষ্পিতা।  কি দেখ্‌লি যা আর দেখিস্‌ নি? এ অন্দর মহলে নতুন কিছু দেখ্‌তে পেলে আমি যে বেঁচে যাই, এক ঘেয়ে তোদের মুখ আার ভাল লাগে না।

দাসী।  [ চুপিচুপি]  ঐ নাচখানার ভিতরে তরোয়াল খুলে সব সেপাই দাঁড়িয়ে আছে। চাতাল থেকে বাইরে আসবার সময় দেখ্‌লুম সেখানেও অমনি!

পুষ্পিতা।  আরে, লড়াই বেধেছে; রাজা রাজধানীতে নাই, পুরী শূন্য; আর আমরা হলাম দামী জিনিস; পাছে ডাকাত পড়ে’ আমাদের নিয়ে যায়, সেই জন্য ওরা সব আমাদের পাহারা দিচ্চে। তা তোকে কেউ নিয়ে যাবে না, ভয় কি?

দাসী।  বাইজী কি বলেন যে! [ হাসিয়া প্রস্থান]

সিতিমা।  এত সাজসজ্জা করে চন্দ্রা কোথায় যায়? [উদ্যানের অপরদিকে একান্তভাবে নিরীক্ষণ] চল আমরা একটু আড়ালে গিয়ে দাঁড়াই।

[ বাহিরে তুর্য্যধনি ]

পুষ্পিতা। [ যাইতে যাইতে] দুর্গপরিখার উপর থেকে সেতু সরা’বে। লোকজনের বাইরে যাওয়া বন্ধ হবে তারই ঘোষণা।

সিতিমা। যাই গোবিন্দজীর পূজার আয়োজন কর্‌তে। আজ সন্ধ্যায়