পাতা:সিতিমা.pdf/২০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
১৬
সিতিমা

সিতিমা। তবু দাঁড়াও।

উজ্জল।  ব্যাপারটা কি?

সিতিমা।  আমার গৃহে একবার এসো।

উজ্জ্বল।  তা পারি না। তুমি রাজান্তঃপুরের স্ত্রীলোক। সৈন্যেরা

 অগ্রসর হচ্চে, সেনাপতি পশ্চাতে থাক্‌বে?

সিতিমা। তোমার সম্মুখে বিপদ-বিশ্বাসঘাতকতা।

উজ্জ্বল।  বটে? তা হোক, আমি লুকাবনা সম্মুখ যুদ্ধে আমি অনভ্যস্ত

  নই।

সিতিমা।  আমি তোমাকে অন্তঃপুরে ধরে রাখ্‌বনা; পুরীর সম্মুখের

 দরজা দিয়ে না গিয়ে, আমার অন্দরের গুপ্তদ্বার দিয়ে, গোবিন্দজীর

 মন্দিরের পিছন দিক দিয়ে, নৌকায় পরিখা পার হও। সেনাপতি

 যেদিকে যেতে বলেছেন যেও না।

উজ্জ্বল।  যাবার আগে একবার পুরী প্রদক্ষিণ করে যেতে সেনাপতিই

 তো বলেছিলেন। এদিকে এসে-

সিতিমা।  চন্দ্রার চিঠি পেলে। আমি বুঝেছি। তোমাকে ধরবার

 জ্ন্য সম্মুখে অস্ত্রধারী গুপ্তচর দাড়িয়ে আছে। আর সময় নাই;

 এখন এদিকে এস। [ উজ্জলের হস্তাকর্ষণ ]

উজ্জল।  ছি! তুমি কি পাগল হলে?—যাই সখি। তুমি সুখে থাক;

 ঈশ্বর তোমায় নিরাপদ করুন। [ চিন্তিতভাবে অগ্রসর।

সিতিমা।  [ কাতর কণ্ঠে ] এদিক দিয়ে এস, কুমার। কথা শোন,

 কথা শোন।