পাতা:সুকুমার রায় রচনাবলী-প্রথম খন্ড.djvu/১৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।


ঋতু

মনের মতন

কান্নাহাসির পোঁটলা বেঁধে বর্ষ ভরা পুঁজি,
বৃদ্ধ বছর উধাও হল ভূতের মুলুক খুঁজি।
নতন বছর এগিয়ে এসে হাত পাতে ওই বারে,
বল দেখি মন, মনের মতন কি দিবি তুই তারে ?

আর কি দিব?—মুখের হাসি, ভরসাভরা প্রাণ,
সখের মাঝে, দুখের মাঝে আনন্দময় গান ॥

                                        সন্দেশ—১৩২৬

বর্ষ গেল, বর্ষ এল

বর্ষ গেল, বর্ষ এল, গ্রীষ্ম এলেন বাড়ি,
পৃথ্বী এলেন চক্র দিয়ে এক বছরের পাড়ি।
সত্যিকালের এই পৃথিবী বয়স কেবা জানে,
লক্ষ হাজার বছর ধরে চলছে একই টানে।
আপন তালে আকাশ পথে আপনি চলে বেগে,
গ্রীষ্মকালের তপ্ত রোদে বর্ষাকালের মেঘে,
শরৎকালের কান্নাহাসি হাল্কা বাদল হাওয়া,
কুয়াশাঘেরা পর্দা ফেলে হিমের আসা-যাওয়া।
শীতের শেষে রিক্ত বেশে শুন্য করে ঝুলি,
তার প্রতিশোধ ফুলে ফলে বসন্তে লয় তুলি।
জানি কোন নেশার ঝোঁকে যুগযুগান্ত ধরে,
ছয়টি ঋতুর দ্বারে দ্বারে পাগল হয়ে ঘোরে !
না জানি কোন ঘুর্ণীপাকে দিনের পরে দিন,
এমন করে ঘোরায় তারে নিদ্রাবিরামহীন !
কাঁটায় কাঁটায় নিয়ম রাখে লক্ষ যুগের প্রথা,
না জানি তার চালচলনের হিসাব রাখে কোথা !

                                          সন্দেশ—১৩২২

বিবিধ কবিতা
১৫৯