পাতা:স্বদেশী সমাজ - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৩৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


স্বদেশী সমাজ ، همدم " বঙ্গদর্শনে প্রকাশিত পাঠ হইতে যে-সকল অংশ উক্ত গ্রন্থে বর্জিত তাহাই বর্তমান গ্রন্থের পরিশিষ্টে সংকলিত হইল। ‘আত্মশক্তি'র অন্তর্গত ‘ভারতবর্ষীয় সমাজ ( প্রথমে ‘হিন্দুত্ব’ নামে ১৩০৮ শ্রাবণ -সংখ্যা বঙ্গদর্শনে প্রকাশিত ) প্রবন্ধের একটি অংশ, যৎসামান্য পরিবর্তনে, পরে ‘ ‘স্বদেশী সমাজ প্রবন্ধের পরিশিষ্ট রচনায় যুক্ত হইয়াছিল। বর্তমান গ্রন্থেও তদনুরূপ মুদ্রিত (পৃ ৪০-৪৩, ৭ + চিহ্নে সীমাবদ্ধ অংশ ) । ১৩১১ সালে রবীন্দ্রনাথ-কর্তৃক স্বদেশী সমাজ প্রবন্ধ সভায় পাঠ -কালে বাংলার মনীষীগণ এ সম্বন্ধে যে আলোচনা করেন ১৩১১ ভাদ্র-সংখ্যা ভারতী পত্রে তাহার বিবরণ প্রকাশিত হয়, এই গ্রন্থে তাহারও সারসংকলন করা হইয়াছে। শুধু আদর্শ ব্যাখ্যা করিয়া রবীন্দ্রনাথ ক্ষান্ত হন নাই, তদনুযায়ী কলিকাতায় কাজ করিতেও তিনি উদ্যোগী হইয়াছিলেন এইরূপ জানা যায়, যদিও কালক্রমে তাহার সকল চিহ্ন ও প্রমাণ লুপ্তপ্রায়। তবে, স্বদেশী সমাজের যে নিয়মাবলী রবীন্দ্রনাথ প্রণয়ন করিয়াছিলেন, তাহার একটি মুদ্রিত সংবিধানপত্র শ্ৰীঅমল হোম মহাশয়ের যত্নে রক্ষা পাইয়াছে এবং বর্তমান গ্রন্থে সংকলন করা হইয়াছে। বন্ধুপত্নী অবলা বস্তুকে লিখিত সমকালীন পত্রেও ( চিঠিপত্র , so-s) ) দেখা যায় যেমন মফস্বলে তেমনি কলিকাতাতেও এরূপ কাজের চেষ্ট হইয়াছিল— ‘স্বরেন্দ্রবাবুরা পল্লীসমাজ-গঠনের চেষ্টায় প্রবৃত্ত হয়েছেন— তারা কলকাতায় ৯ নম্বর ওয়ার্ডে কাজ আরম্ভ করে দিয়েছেন— পল্লীগ্রামেও লাগবেন বলে আশ} দিয়েছেন।” পল্লীর ক্ষেত্রে এই স্বদেশী সমাজের বিশেষ যে রূপ রবীন্দ্রনাথের পরিকল্পনায় ছিল, তাহা অংশতঃ ব্যক্ত হইয়াছে তাহার অপর একটি রচনায় 8 २२