পাতা:হিন্দুধর্ম্মের নবজাগরণ - দ্বিতীয় সংস্করণ.pdf/৮২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ভারতবন্ধু অধ্যাপক মাকসমুলার ম্যাকসমূলার একজন ঘোর বৈদান্তিক । তিনি বাস্তবিক বেদান্তের মুর বেসুর ভিন্ন ভিন্ন ভাবের ভিতর উহার প্রকৃত তানকে ধরিয়াছেন। বাস্তবিক পক্ষে, বেদান্ত সেই একমাত্র আলোক, যাহা পৃথিবীর সকল সম্প্রদায় ও মতকে আলোকিত করিতেছে, উহা সেই এক তত্ত্ব, সমুদয় ধৰ্ম্মই যাহার কাৰ্য্যে পরিণতি মাত্র। আর রামকৃষ্ণ পরমহংস কি ছিলেন ? তিনি এই প্রাচীন তত্ত্বের প্রত্যক্ষ উদাহরণ, প্রাচীন ভারতের সাকার অবয়বস্বরূপ ও ভবিষ্যৎ ভারতের পূর্বাভাসস্বরূপ—সকল জাতির নিকট আধ্যাত্মিক আলোকবাহকস্বরূপ । চলিত কথায় আছে, জহুরীই জহর চেনে । তাই বলি, ইহা কি বিস্ময়ের বিষয় যে, এই পাশ্চাত্য ঋষি ভারতীয় চিন্তাগগনে কোন নূতন নক্ষত্রের উদয় হইলেই, ভারতবাসিগণ উহার মহত্ত্ব বুঝিবার পূর্বেই উহার প্রতি আকৃষ্ট হন ও উহার বিষয়ে বিশেষ আলোচনা করেন ? আমি তাহাকে বলিয়াছিলাম, “আপনি কবে ভারতে আসিতেছেন ? ভারতবাসীর পূর্বপুরুষগণের চিন্তারাশি আপনি যথার্থ ভাবে লোকের সমক্ষে প্রকাশ করিয়াছেন, সুতরাং তথাকার সকলেই আপনার শুভাগমনে আনন্দিত হইবে।” বৃদ্ধ ঋষির মুখ উজ্জ্বল হইয়া উঠিল, তাহার নয়নে এক বিন্দু অশ্রু নিৰ্গতপ্রায় হইল—মৃদুভাবে শির ጭ »