পাতা:১৫১৩ সাল.pdf/৪৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
৩৩
১৫১৩ সাল।

 “ওমা! আমি কি জানি, আমি চুরি করিব কেন? কেন মিথ্যা অপবাদ দেও? আজ তিন কাল গেল—”।

 হরিশ তাহাকে শাসাইল:—

 “দেখ্, ভাল চাস তো এখনও সত্য বল্। নইলে তোর ভাল হবে না।”

 তবুও সে দোষ স্বীকার করিল না।

 হরিশ আমাদিগকে বলিল:—

 “তবে সকল কথা শুনুন। একদিন ও আপনার সম্বন্ধে অনেক কথা জিজ্ঞাসা করে। কখা-প্রসঙ্গে আমি বলিয়াছিলাম যে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় কাগজ পত্ৰাদি এক সেফে রাখিয়া থাকেন এবং উহার চাবী আপনার মাথার বালিসের নীচে থাকে। তখন বুঝিতে পারি নাই যে তাহার এই কথাগুলি জানার এক গুরুতর অভিপ্ৰায় ছিল। পরে একদিন সম্পাদক মহাশয় কথা-প্রসঙ্গে আমায় ঐ প্লানাদি চুরি করিয়া তাহাকে দিতে বলেন। আমি কতকগুলি ওজর করিয়া অপারগতা জানাই। তাহাতে তিনি আমায় আর কিছু না বলিয়া এই ঝিকে অর্থলোভে—মাত্র ৫০৲ টাকায়—বশীভূত করিয়া আপনার অনুপস্থিতিতে ঐ কাগজগুলি চুরি করাইয়া লইয়া যান। কথাটা প্ৰকাশ পাইত না। কিন্তু কি জানেন, স্ত্রীলোকের পেটে কথা থাকে না। কথা-প্রসঙ্গে ঝি উহার কুকার্য্যের কথা কাহারও নিকট প্রকাশ করিয়া ফেলে। তাহারই নিকট আমি সকল কথা শুনিয়াছি।”

 বন্ধুবর ক্রুদ্ধ হইয়া চিৎকার করিয়া বলিলেন:—“হাঁরে মাগি, তোর এই কাজ? আমি দুধ-কলা দিয়ে কি তবে এতকাল সাপ পুষ্‌ছি?”

 “আ—না—না—আমি—না—”, ঝি গোঙ্গাইয়া বলিতে লাগিল। বন্ধুবর হরিশকে জিজ্ঞাসা করিলেন:—

 “আচ্ছা, আমার মার্ব্বেল চৌবাচ্চাটা কে ভাঙ্গিয়াছে বলিতে পার?”

 “এই মাগীর ছেলের কাজ। নিজে বুড়া হইয়াছে, তত সামৰ্থ নাই।