পাতা:১৫১৩ সাল.pdf/৭৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
৬০
১৫১৩ সাল।

প্রভৃতি কত প্রকারের যে নূতন মৎস্য দেখিলাম তাহা বৰ্ণনা করা যায় না। সেদিনকার অপূর্ব্ব আনন্দ ইহজীবনে ভুলিব না।

 বন্ধুবর একটা Limpsucker দেখিয়া উহার বর্ণনা করিতেছেন, এমন সময় দেখি গোলাকার একটা কি ভাসিয়া যাইতেছে। উহার গাত্রোপরিস্থিত আঁইসগুলি সোজাভাবে অবস্থিত। উহা কি জিজ্ঞাসা করায় তিনি বলিলেন:—

 “উহার নাম Diodon বা Globe fish। উহা বায়ুভক্ষণ করিয়া বেলুনের মত আকার ধারণ করিতে পারে। ফলে, উহাকে কেহ আক্রমণ করিলে ঐ সোজা দাঁড়ার জন্য উহার কোনই অনিষ্ট হয় না।”

 “উহা কি সাঁতার দিতে পারে?”

 “অনেকের বিশ্বসে উহা পারে না। ঊনবিংশ শতাব্দীতে কুভিয়ার নামে যে এক বিখ্যাত পণ্ডিত ছিলেন তাঁহারও ঐ মত ছিল। কিন্তু ডারউইন্ দেখাইয়া ছিলেন যে উহা কেবল সাঁতার দিতে পারে তাহা নহে, সোজা, উল্টা, যে ভাবে ইচ্ছা চলিতে পারে।”

 বন্ধুবরের বক্তব্য শেষ হইতে না হইতেই দেখি একটা শুভ্ৰবর্ণের হাঙ্গর উহার দিকে ধাবিত হইয়াছে। হঠাৎ উহা থমকিয়া দাঁড়াইল। পরে ঐ Globe উহাকে আক্রমণ করিল এবং উহাকে মুখে করিয়া অদৃশ্য হইল।

 বন্ধুবর বলিলেন:—

 “ঐ যে জীবটা দেখিলে উহা নাবিকদিগের এক বিশেষ ভয়ের কারণ। উহাকে ধরিবামাত্র তাহারা উহার ল্যাজ কাটিয়া দেয়। তাহাদের বিশ্বাস যে ঐ ল্যাজেই উহার সকল শক্তি নিহিত আছে। উহার সম্বন্ধে যদি বিস্তারিত বিবরণ জানিতে ইচ্ছা কর, তবে Captain Hall প্রণীত Fragments of Voyages and Travels, Second Series, প্রথমভাগ, ২৬৭ পৃষ্ঠা পাঠ করিও। এই কয়েক ঘন্টার মধ্যে