পাতা:১৯০৫ সালে বাংলা.pdf/৫১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


| 85 প্রকৃত অবস্থা বুঝিতে পারেন না, মধ্যপ্রদেশের মহাবন হইতে সমাগত হইয়া র্যাহারা বাঙ্গালীর মনোভাব ও প্রকৃতি হৃদয়ঙ্গম করিতে সমর্থ নহেন, এই দেশব্যাপী শোচনীয় বিরোধ ও উত্তেজনার জন্য র্তাহারাই দায়ী । যেখানে মিলন ও সাস্তুনায় কাৰ্য্য হয় সেইখানে তাহার কঠোর দমন নীতির প্রয়োগ করিয়াছেন । তাহারা অগ্নিশিখা বলপ্রয়োগে নিৰ্বাপিত করিতে চেষ্টা করিয়াছেন, শিখ। দ্বিগুণবেগে প্রজলিত হইয়া উঠিয়াছে। কিন্তু আমাদিগর রাজপুরুষদিগের দোষ যাহাই হউক না কেন, তাহদিগের গুণবত্তার যতই লাঘব ঘটিয়া থাকুক, আমাদিগের কৰ্ত্তব্য পথ সরল ও স্পষ্টই রহিয়াছে। দেশের সেবায় অবিচলিত চিত্তে নিযুক্ত হওয়া ও বিধিসঙ্গত উপায়ে আন্দোলনে প্রবৃত্ত থাকা আমাদিগের কৰ্ত্তব্য কাৰ্য্য । মহোদয়গণ ! আপনারা লাঞ্ছনাভোগ করিয়া আমাদিগের সম্মুখে যে উচ্চ আদর্শ উপস্থাপিত করিয়াছেন সেই আদর্শে আমরা লাভবান হইব বলিয়া এস্থলে সমবেত হইয়াছি। আপনাদিগের উপর আমাদিগের আস্থ ও অনুরাগ আছে ইহা আপনাদিগের সম্মানার্থ নহে, আমাদিগের নিজেরই মঙ্গলার্থে লিপিবদ্ধ করিতেছি। আমরা সমস্ত জগৎসমক্ষে প্রকাশ করিতে চাহি যে আপনাদিগের উপর দণ্ডপ্রয়োগে আপনার অপদস্থ হন নাই, দেশের কল্যাণার্থ প্রফুল্লচিত্তে শাস্তি সহ করায় কাহার ও গৌরব হানি হয় না বরং তাহাতে সাধারণের নিকট সম্মানবৃদ্ধি ও প্রশংসা লাভ হয় । এবং দেশের লোকের স্নেহ ও কৃতজ্ঞতা আকর্ষণ করে ।