পাতা:Bharatkosh 1st Vol.pdf/১১০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


________________

অদ্বৈত আচার্য | শিক্ষা আরম্ভ করেন এবং বহু স্থান হইতে দীর্ঘকাল ধরিয়া | শিক্ষা করিয়া মনােহরসাহী কীর্তনে অসাধারণ দক্ষতা লাভ করেন। পণ্ডিত বাবাজী মহাশয় হরিনামামৃত ব্যাকরণ ও শ্রীমদ্ভাগবত অধ্যাপনা করিতেন। ৭৬ বছর বয়সে ইনি নব্যন্যায় পড়িবার জন্য নবদ্বীপে আসেন ও তিন | বৎসর ধরিয়া আশুতােষ তর্কভূষণের নিকট শিক্ষালাভ করিয়া বৃন্দাবনে ফিরিয়া যান। বিমানবিহারী মজুমদার | অদ্বৈত আচার্য শ্রীচৈতন্যের জন্মের পূর্বেই ইনি ভক্তি ও পাণ্ডিত্যের জন্য খ্যাতিলাভ করিয়াছিলেন। শ্রীচৈতন্যের পরম গুরু মাধবেন্দ্র পুরীর ইনি শিষ্য। শ্রীহট্টের লাউড় | গ্রামে বারেন্দ্র ব্রাহ্মণকুলে ইহার জন্ম। পরে শান্তিপুরে আসিয়া বসবাস করেন। নবদ্বীপেও ইহার একটি বাড়ি ছিল। নবদ্বীপের ভক্তদের ইনিই প্রধান অবলম্বন ছিলেন। নিমাই গয়া হইতে ভাবসম্পদ লইয়া ফিরিয়া আসিবার কয়েকমাস পরে ভক্তগণ তাঁহাকে স্বয়ং ভগবান্ বলিয়া পূজা করিতে আরম্ভ করেন। তখন প্রবীণ পণ্ডিত অদ্বৈত | আচাৰ্যই সর্বপ্রথম বৈদিক মন্ত্র উচ্চারণ করিয়া শ্রীগৌরাঙ্গের চরণে সচন্দন তুলসীপত্র দিয়া প্রণাম করেন। | অদ্বৈতের দুই স্ত্রী শ্রী ও সীত। সীতাদেবীর গর্ভে | পাঁচটি (অথবা ছয়টি ) পুত্র জন্মে। তাহাদের নাম | অচ্যুত, কৃষ্ণদাস, গোপাল, বলরাম ও জগদীশ। শ্রীচৈতন্য চরিতামৃতের কোনও কোনও পুথিতে এবং অদ্বৈতবিলাস | গ্রন্থে স্বরূপ নামে আর একটি পুত্রের উল্লেখ দেখা যায়। ইহাদের মধ্যে অচ্যুত বাল্যকাল হইতেই শ্রীচৈতন্যের পরম ভক্ত ছিলেন। অদ্বৈতপ্রভু পুরীতে রথযাত্রা উপলক্ষে সমাগত লক্ষ | লক্ষ লোকের মধ্যে শ্রীচৈতন্যের অবতারত্ব ঘােষণার উদ্দেশ্যে ভক্তগণের দ্বারা স্বরচিত স্তব কীর্তন করান। ১৫১৩ খ্ৰীষ্টাব্দে শ্রীচৈতন্য যখন শান্তিপুরে আসেন তখন অদ্বৈত আচার্য বিদ্যাপতির পদ গাহিয়া তাহাকে অভ্যর্থনা করিয়াছিলেন। | অদ্বৈতপ্রভু লােকাচার অপেক্ষা ভক্তিকে প্রাধান্য দিতেন। তাই যবন হরিদাসকে তিনি শ্রাদ্ধের অগ্রভাগ প্রদান করিয়াছিলেন। আত্মমহিমা প্রচারেও তিনি বীতস্পৃহ ছিলেন। একদল ভক্ত শ্ৰীচৈতন্যের পরিবর্তে তাহাকে অবতার বলিয়া প্রচার করিতে উদ্যোগী হইলে অদ্বৈত আচার্য তাহাদিগকে উৎসাহ দেন নাই। | পরবর্তীকালে ‘অদ্বৈতপ্রকাশ’, ‘বাল্যলীলাসূত্র’, ‘অদ্বৈত