পাতা:Bharatkosh 1st Vol.pdf/১৩৪৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


________________

উষ্ণ প্রস্রবণ ইতিপূর্বেই স্ফুটনাঙ্কে ছিল। হঠাৎ বাষ্পে পরিণত হয়। এই অবস্থায় বিস্ফোরণ ঘটে এবং জলরাশি প্রবলবেগে উর্ধ্বে উংক্ষিপ্ত হইতে থাকে। একবার বিস্ফোরণ হইবার পর আবার যতক্ষণ না জলরাশি সঞ্চিত হইয়া যথেষ্ট গরম হইয়া উঠিতেছে ততক্ষণ আর বিস্ফোরণ হয় না। আইসল্যান্ড, আমেরিকার যুক্তরাষ্ট্র ও নিউজিল্যাণ্ডের গেজারগুলি প্রসিদ্ধ। আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের ‘ইয়ােলােস্টোন ন্যাশন্যাল পার্ক’-এ ৩০০০ উষ্ণ প্রস্রবণ ও ২০০ টি গেজার আছে। এই শতাব্দীর প্রথম ভাগে নিউজিল্যাণ্ডের একটি গেজার হইতে বিস্ফোরণের ফলে জলরাশি ১৩০০ ফুট উর্ধ্বে নিক্ষিপ্ত উষ্ণ প্রস্রবণের জলে দ্রবীভূত পদার্থগুলি প্রস্রবণের মুখে জমিয়া স্পঞ্জের ন্যায় একপ্রকার ছিদ্রযুক্ত শিলার ( সিন্টার ) সৃষ্টি করে। ইহা প্রধানতঃ দুই প্রকার . সিলিকাযুক্ত ( সিলিশাস ) এবং চুনযুক্ত ( ক্যালকেরিয়াস )। কোনও কোনও প্রস্রবণের মুখে বিচিত্র বর্ণের শৈবালজাতীয় উদ্ভিদ ( অ্যালজি) সঞ্চিত হইয়া বর্ণোজ্জ্বল পটভূমি রচনা করে। | জিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইণ্ডিয়ার বৈজ্ঞানিক। প্রকৃতিকুমার ঘোষ ব্যাপক অনুসন্ধান করিয়া ভারতের খনিজ ও উষ্ণ প্রস্রবণ সম্পর্কে বিশদ তথ্য আহরণ করেন ও ১৯৪৮ খ্ৰীষ্টাব্দে ভারতীয় বিজ্ঞান কংগ্রেসের ভূতত্ত্ব শাখার সভাপতির ভাষণে উক্ত বিষয়ে আলােচনা করেন। তাহার অনুসন্ধানের ফলে দেখা গিয়াছে যে, ভারতের খনিজ প্রস্রবণগুলি প্রধানতঃ চারিটি অঞ্চলে বিন্যস্ত : ১. বিহারের কয়লাখনিগুলির সীমানার সমান্তরাল অঞ্চল এবং রাজগীর ও মুঙ্গের। ২. ভারতের পশ্চিম উপকূলে অবস্থিত রত্নগিরি, থানা, কোলাবা প্রভৃতি অঞ্চল। ৩. সিন্ধু-বেলুচিস্তান অঞ্চল (বর্তমানে পাকিস্তানের অন্তর্গত)। ৪. হিমালয় অঞ্চল। এতদ্ভিন্ন আরও কয়েকটি বিচ্ছিন্ন স্থানে (যেমন, পূর্ব পাকিস্তানের চট্টগ্রামে) উষ্ণ প্রস্রবণ আছে। জলের প্রকৃতি অনুসারে ভারতের উষ্ণ প্রস্রবণগুলিকে কয়েকটি ভাগে বিভক্ত করা যায়। ১. বিশুদ্ধ জলের প্রস্রবণ : ইহাতে দ্রবীভূত পদার্থ অতি অল্প। রাজগীরের ব্ৰহ্মকুণ্ড ইহার দৃষ্টান্ত। ২. ক্ষারযুক্ত জলের প্রস্রবণ : দ্রবীভূত পদার্থের মধ্যে সােডা, পটাশ প্রভৃতি ক্ষারজাতীয় ( অ্যালক্যালাইন) পদার্থই প্রধান। হাজারিবাগের গান্ধোয়ানি ক্ষারযুক্ত জলের প্রস্রবণ। ৩ গন্ধযুক্ত জলের প্রস্রবণ : গন্ধক ‘সদ্যোজাত জলে’র উপস্থিতি প্রমাণ করে। হাজারিবাগের দুয়ারি ও সুরজ কুণ্ডের জল গন্ধযুক্ত। ৪. লবণাক্ত জলের প্রস্রবণ : ইহাতে দ্রবীভূত লবণই