পাতা:Bharatkosh 1st Vol.pdf/৪৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


________________

অগ্নিপূজা | ইন্দো-ইওয়ােপীয় মূল : । দিব=দীপ্তি পাওয়া > ল্যাটিন ডিউস, সংস্কৃত দেব, আবেস্তীয় দইব = দীপ্তিমান দেবতা, জার্মান টিউ.Tiw, যেমন Tuesday; ইংরেজী ‘ডে’ শব্দ <daeg (প্রাচীন ইংরেজী )=সংস্কৃত ‘দাঘ’ অথবা ‘দাহ’, তুলনীয় নিদাঘ’ = গ্রীষ্মদিন ; ল্যাটিন atrium ‘আত্ৰিউ’= আবেস্তীয় ‘আতর’= অগ্নিস্থান বা বেদী ; ল্যাটিন ignis ‘ইগনিস’=সংস্কৃত ‘অগ্নি’=বালটিক। ogne ‘ওগনে’= স্লাভ oganu ‘ওগ’= আগুন। (খ) ইন্দো-ইরানীয় অগ্নি— অনার্য আদিবাসীদিগকে পরাস্ত করিয়া উত্তর ভারতে আর্যজাতির ভ্রমণ-অভিযান যখন সমাপ্ত হইল তখন তাহারা কৃষিজীবীরূপে এদেশে বসবাস আরম্ভ করিলেন। জাতীয় দেবতারূপে গৃহীত হইয়া। ইন্দ্র দান করিলেন বিজয়, সােম দিলেন উল্লাসবর্ধক পানীয়, | এবং স্বয়ং অগ্নি পশুযাগে ও অন্যবিধ যজ্ঞাদিতে উৎসর্গীকৃত বস্তুসমুদয় দেবতবর্গের নিকট প্রেরণ করিতে লাগিলেন। এইরূপে ভারতীয় আর্যগণের নিকট অগ্নি অতি প্রধান দেবতারূপে গৃহীত হইলেন- তাহার নাম হইল অসংখ্য | এবং বাস হইল ত্রিলােক ব্যাপিয়া। অসুরের জঠরে জন্ম লাভ করিয়া (অসুস্য জঠরা অজায়ত) অগ্নি দেবতাবর্গের | মুখ এবং জিহ্বারূপে পরিচয় লাভ করিলেন। তিনি অন্তরিক্ষে, তিনি ধরিত্রীগর্ভে, তিনি জীবজগতে, তিনি ঈশ্বর, পরিবারে তিনি গৃহপতি, তিনি যুগস্রষ্টা প্রভু, তিনি | জাতি ও সমাজে চক্রবর্তী। ইন্দো-ইরানীয়গণ ছিলেন মূলতঃই অগ্নি-উপাসক এবং তাঁহাদের সর্ববিধ কল্যাণের জন্য তাহারা অগ্নির সাহায্যে দেবগণের উদ্দেশ্যে বিস্তৃত ও জটিল পদ্ধতিতে যজ্ঞ ও উপাসনাদি করিতেন। ক্রমে যখন আর্যজাতি পাঞ্জাবে আসিলেন তখন অগ্নি দ্বারা মৃতদেহ পবিত্রীকরণপদ্ধতি বা শবদাহপ্রথার প্রচলন হইল, যে প্রথা ইরানীয় আর্যগণ কখনও গ্রহণ করেন নাই। (গ) ইরান দেশে আতর, অত(atar)—- প্রাচীন ইরান দেশের সমগ্র সভ্যতা অথবা আর্যসংস্কৃতি অগ্নিকে কেন্দ্র করিয়াই গড়িয়া উঠিয়াছিল। জরথুস্ত্র (Zarathustra ) | পরিপূর্ণ একেশ্বরবাদ প্রচার করিয়া যজ্ঞের পরিবর্তে যশনের | (Yasna) বা পূজাবিধির প্রচলন করেন এবং মুর্তিপূজা, | গােমেধ, হওম (Haoma) ও সােমপান নিষিদ্ধ করেন। অগ্নি এবং ইন্দ্র পশুবধের সহিত বিশেষভাবে সংশ্লিষ্ট ছিলেন বলিয়া আবেস্তীয় গাথায় তাহাদের আদৌ উল্লেখ নাই কিন্তু তাহার পরিবর্তে আদিম আর্য জাতির (proto| Aryan) বেদী অথবা কুস্থিত অগ্নির মাহাত্ম্য কীর্তিত