পাতা:Bharatkosh 1st Vol.pdf/৪৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


________________

অগ্নিপূজা। হইয়াছে। তিনি অহুরের সর্বশ্রেষ্ঠ সৃষ্টি, তিনি পুথ বা মজদা, তিনি বিশ্বকে নবজন্ম দান করেন। তিনি দৈব জগতে অষ ( Asha) অথবা ঋতের প্রতীক। আতর বিধিমতে ধর্মবিশ্বাসের মুখ্যবস্তুরূপে স্বীকৃত হইলেন এবং নিয়মানুষ্ঠানে ও সর্ববিধ ক্রিয়াকর্মের মূলাধার রূপে পরিগৃহীত হইলেন। পরিবারসমূহে অগ্নিকুণ্ডে আতর রক্ষিত হইত এবং রাজা তাঁহার রাজপ্রাসাদ অপদানে ( Apadana ) এই আতকে প্রজ্বলিত রাখিতেন। খ্রীষ্টপূর্ব ৪৫০ অব্দে হেয়ােডটাস যথার্থই বলিয়াছিলেন যে । ইরান দেশে মূর্তি বা উপাসনাগৃহ নাই। একটি বহনযােগ্য আধারে অগ্নিবেদীকে শােভাযাত্রা করিয়া লওয়া হইত। পার্থিয়ান যুগে (১৫০ খ্রীষ্টপূর্ব ) পর্যন্ত উৎসবাদির সময় সর্বসাধারণের উপাসনার নিমিত্ত অগ্নিকে উন্মুক্ত স্থানে রাখা হইত। মাত্র সাসানীয় যুগে ২২৫ খ্রীষ্টাব্দে এই অগ্নিকে দুর্গের ছাদে স্থাপন করা হয়। ক্রমে জনসাধারণের উপাসনার জন্য গৃহ নির্মাণ করিয়া আতর রক্ষার ব্যবস্থা হইল। পরিবারস্থিত যে অগ্নির নিকট স্বাস্থ্য, সন্ততি এবং পিতৃপুরুষের উদ্দেশ্যে প্রার্থনাদি করা হইত তাহার নাম প্রথম আধুনিক যুগে হইল দদগাহ, (ব। ধর্মসম্মত)। ইহার অপেক্ষাকৃত উচ্চশ্রেণীতে যে আতর জনসাধারণকর্তৃক উৎসবাদিতে পূজিত হইতেন তাহার নাম ছিল আতর গাহ, ( পার্বণসম্মত) এবং সর্বোচ্চ শ্রেণীতে যে আতর জাতীয় বিজয়ােৎসবে অথবা রাজ্যাভিষেকের সময় পূজা পাইতেন তাহার নাম পৌরাণিক বীরগণের নামের অনুকরণে বৃত্ৰহণ, বৃত্ৰগ্ন, বেরেথ বা বহরাম ইত্যাদি রাখা হইত। এই নিয়মে নগরের নামও আতর পাত, বা আতরাবাদ হইয়াছিল। অগ্নিগৃহগুলিতে বিদ্যালয় গ্রন্থাগার অর্থকোষ ও বিচারশালা ইত্যাদি স্থাপিত হইত। মূলতঃ বলিতে গেলে আথবণগণ ( আতর বা অগ্নির রক্ষকগণ বা পরিচর্যাকারী ) যাহারা ঐরয়, (আর্য ) জাতিকে তাহাদের অইরান ( = ইরান) -রূপী বিশ্রামভূমি বা উপনিবেশে আনিয়াছিলেন, তাহারা অগ্নিকেন্দ্রিক যে সংস্কৃতির সৃষ্টি করেন তাহা মানব-সভ্যতার ইতিহাসে অতি বিচিত্র অধ্যায়। (ঘ) আতর-এর পার্শী পুরােহিতগণ— খ্ৰীষ্টীয় ৬৫১ অব্দে আরব কর্তৃক ইরান বিজয়ের পরই জরথুস্ত্র সম্প্রদায়ের প্রাচীন অগ্নিপূজার অনুষ্ঠানপদ্ধতি, আদর্শ, তত্ত্বচিন্তা ও বিশ্বাস অবিচ্ছিন্ন ধারায় রক্ষা করিবার উদ্দেশ্যে পলাতক পাশীগণ ভারতবর্ষে চলিয়া আসিয়াছিলেন। এদেশে বসবাস করিবার পাঁচ বৎসরের মধ্যেই ৭৯০ খ্রীষ্টাব্দে আতর বহরামকে বিশিষ্টরূপেই ইরানশাহ নাম দিয়া স্থাপিত করা