পাতা:Bharatkosh 1st Vol.pdf/৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


________________

অগ্ন্যাশয় অগ্ন্যাগার নির্মিত হইত। সেইখানে যথাবিধি অগ্নি । প্রতিষ্ঠা করা হইত। এই অগ্নিপ্রতিষ্ঠাকর্মের নাম অগ্ন্যাধান। যিনি অগ্নি প্রতিষ্ঠা করেন তাঁহাকে আহিতাগ্নি বলা হয়। অগ্নিশালাস্থ চতুষ্কোণ বেদীর তিন দিকে তিনটি অগ্নিস্থাপন করা হইত। বেদীর পশ্চিম দিকে গার্হপত্য, পূর্বদিকে আহবনীয় এবং দক্ষিণে দক্ষিণাগ্নির স্থান নির্দিষ্ট ছিল। আহবনীয় অগ্নিতে দেবগণের উদ্দেশে এবং দক্ষিণাগ্নিতে পরলােকগত পিতৃপুরুষের উদ্দেশে আহুতি প্রদত্ত হইত। গার্হপত্য অগ্নিকে কখনও নির্বাপিত হইতে দেওয়া হইত না। প্রয়ােজনমত উহা হইতে আহবনীয় ও দক্ষিণাগ্নিস্থানে অগ্নি আনীত হইত। আহবনীয় অগ্নিতে প্রতিদিন অনুষ্ঠেয় যজ্ঞের নাম অগ্নিহােত্র। এই উপলক্ষে প্রাতঃকালে ও সন্ধ্যায় যথাক্রমে সূর্য ও অগ্নির উদ্দেশে আহুতি দিতে হইত। সামান্য একটু দুধ, তদভাবে সামান্য দধি বা চাউল আহুতি দিলেই কার্য সম্পন্ন হইত। যিনি নিত্য অগ্নিহােত্ৰযাগ সম্পাদন করেন তাহাকে অগ্নিহােত্রী বলা হয়। গৃহস্থকে স্বয়ং এই যাগ করিতে হইত। অসমর্থ হইলে পুত্র, ভ্রাতা, ভাগিনেয়, জামাতা, অথবা অধ্বযুকে প্রতিনিধিরূপে নিযুক্ত করার ব্যবস্থা ছিল। ঐ ঐতরেয় ব্রাহ্মণ, পঞ্চবিংশ অধ্যায়, রামেন্দ্রসুন্দর ত্রিবেদী -কৃত অনুবাদ, রামেন্দ্র-রচনাবলী, পঞ্চম খণ্ড। রামেন্দ্রসুন্দর ত্রিবেদী, যজ্ঞকথা, রামেন্দ্র-রচনাবলী, তৃতীয় খণ্ড; A. B. Keith, tr. The Rigveda Brahmanas, Harvard Oriental Series, Vol. XXV, 1920. বিষ্ণুপদ ভট্টাচার্য অগ্ন্যাশয় (pancreas) ক্ষুদ্রান্ত্রের (small intestine) সন্নিকটে অবস্থিত অগ্ন্যাশয় গ্রন্থিটি দুই প্রকার রস ক্ষরণ করে—পাচকরস ও হর্মোন। | অগ্ন্যাশয়ের ক্ষারধর্মী পাচকরস নালিকার সাহায্যে ক্ষুদ্রান্ত্রে পৌছায়। ইহাতে ট্রিপসিন (trypsin), কাইমােট্রিfra ( chymotrypsin ), atat ca 5 ( amylase ), লাইপেজ, (lipase) প্রভৃতি এজাইম থাকে—প্রথম দুইটি ক্ষুদ্রান্ত্রে প্রােটিনের, তৃতীয়টি শর্করার ও চতুর্থটি তৈলজাতীয় খাদ্যের পাচন করে। ২৪ ঘণ্টায় প্রায় ৫০০-১২০০ মিলিলিটার পাচকরস অগ্ন্যাশয় হইতে ক্ষরিত হয়। আহারের সময় খাদ্যের স্বাদ, গন্ধ প্রভৃতির জন্য স্নায়ুর প্রভাবে ইহার ক্ষরণ ঘটে। খাদ্য ক্ষুদ্রান্ত্রে পেীছিলে ক্ষুদ্রান্ত্রের গাত্র হইতে রক্তে ক্ষরিত সিক্ৰিটিন (secretin)