পাতা:Bharatkosh 1st Vol.pdf/৬২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


________________

অচিন্ত্যভেদাভেদবাদ বাদ দিলে সহজেই বুঝা যায় যে, জীব ও ব্ৰহ্ম অভিন্ন, কারণ উভয়েই চৈতন্যস্বরূপ। | বঙ্গীয় বৈষ্ণবাচার্যগণ বলেন যে, মুখ্যার্থের সংগতি থাকিলে লক্ষণ বৃত্তিদ্বারা কোনও শব্দের অর্থ করা উচিত নহে। বেদবাক্যের অর্থ মুখ্যা বৃত্তিতেই করা উচিত। তাহা করিলে বেদের স্বতঃপ্রামাণ্য স্বীকার করার সার্থকতা থাকে না। লক্ষণদ্বারা নির্ণীত অর্থ স্বতঃপ্রমাণ নহে, যেহেতু যুক্তির সহায়তা ব্যতীত সেই অর্থ লাভ করা যায় । কি অভেদবাচক, কি ভেদবাচক, কি নির্বিশেষ ব্ৰহ্মবােধক, কি সবিশেষ ব্ৰহ্মবােধক সকল শ্রতিবাক্যেরই গুরুত্ব সমান। দৃশ্যমান জীব-জগদাদির সত্যতা স্বীকার করিয়াও ব্রহ্মের অদ্বয়ত্ব রক্ষা করা সম্ভব। জীবের ও জগতের পৃথক অস্তিত্ব থাকিলেও উহার। ব্ৰহ্মনিরপেক্ষ নহে। আপাত দৃষ্টিতে ব্রহ্মের সহিত উহাদের ভেদ প্রতীয়মান | হইলেও তত্ত্বতঃ উহারা ব্রহ্মের সহিত অভিন্ন। ব্রহ্মের সহিত অপর কোনও পদার্থের ভেদ স্থাপন করা সম্ভব নহে। দুইটি পদার্থের প্রত্যেকটিই যদি স্বয়ংসিদ্ধ হয় তাহা | হইলে তাহাদের ভেদ সিদ্ধ হয়। স্বয়ংসিদ্ধ, স্বজাতীয় বা বিজাতীয় কিংবা স্বগত কোনও ভেদ ব্রহ্মের নাই। সুতরাং ব্রহ্মের অদ্বয়ত্বের হানি ঘটিবার সম্ভাবনা নাই। ব্ৰহ্ম এবং জীব উভয়েই চিংপদার্থ ; তথাপি জীবে ব্রহ্মের স্বজাতীয় ভেদ আছে বলা চলে না, যেহেতু জীব স্বয়ংসিদ্ধ পদার্থ নহে; জীব ব্রহ্মেরই তটস্থ শক্তি, ব্রহ্মাপেক্ষ। ব্রহ্মের সহিত মায়ার এবং মায়াপ্রসূত জগতের পার্থক্য সুস্পষ্ট। ব্ৰহ্ম চিং, ইহারা জড় ; তথাপি ইহাদের মধ্যে ব্রহ্মের বিজাতীয় ভেদ আছে বলা চলে না, যেহেতু মায়া ব্রহ্মেরই শক্তি এবং জগৎ ব্রহ্মেরই সৃষ্টি। ইহারা স্বয়ংসিদ্ধ বস্তু নহে, ইহারাও ব্রহ্মাপেক্ষ। ব্রহ্মে স্বগত ভেদও নাই। স্বগত ভেদের অর্থ উপাদানগত ভেদ এবং তজ্জনিত ক্রিয়াশক্তির ভেদ। জীবের মধ্যে স্বগত ভেদ আছে, কারণ জীবের উপাদানগত দেহ এবং দেহী এক বস্তু নহে। দেহ জড়, দেহী চিরূপ। ব্রহ্মের মধ্যে এইরূপ দেহ-দেহী ভেদ নাই। ব্ৰহ্মকে সচ্চিদানন্দবিগ্রহ বলা হইয়া থাকে। ইহার অর্থ— যেই ব্ৰহ্ম, সেই বিগ্রহ ; যেই বিগ্রহ, সেই ব্ৰহ্ম। ব্রহ্মে উপাদানগত ভেদ না থাকায় তজ্জনিত | ক্রিয়াশক্তি ভেদও নাই, জীবের মধ্যে উপাদানগত ভেদ| জনিত ক্রিয়াশক্তি ভেদ আছে। জীবের চক্ষু-কৰ্ণাদি | তাহার দেহের পৃথক পৃথক উপাদান। চক্ষুতে তেজের ভাগ বেশি বলিয়া চক্ষু কেবল দেখিতে পারে, শুনিতে পারে | না ; কর্ণে মরুতের ভাগ বেশি বলিয়া কর্ণ শুনিতে পারে, দেখিতে পারে না। কিন্তু ব্ৰহ্মে উপাদানগত ভেদ না