পাতা:Bharatkosh 1st Vol.pdf/৬৯

From উইকিসংকলন
Jump to navigation Jump to search
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


________________

অচিন্ত্যভেদাভেদবাদ মণ্ডলের মধ্যে প্রবেশ করে না সেইরূপ জীবগণও কখনও পরব্রহ্মের স্বরূপভূত হইয়া যায় না। এমন কি মুক্তাবস্থাতেও ভগবৎস্বরূপের সহিত জীবরূপের পার্থক্য থাকে। জীবাত্মা আয়তনে ভগবৎস্বরূপের ন্যায় বিভু বা সর্বব্যাপক নহে, মনুষাদির দেহের ন্যায় মধ্যমাকারও নহে; উহা অণুপরিমাণ। অণুপরিমাণ হইলেও উহা জড় নহে, চেতন। একবিন্দু চন্দন যেমন দেহের এক অংশে থাকিয়া সমগ্র দেহে স্নিগ্ধতার অনুভূতি প্রদান করে, সেইরূপ জীবাত্মা হৃদয়ে অবস্থান করিয়া সমগ্র দেহে চেতনা বিস্তার করিয়া থাকে। জীব শক্তি বিশিষ্ট পরব্রহ্ম যেমন চিস্তু, জীবও সেইরূপ চিদবস্তু। কিন্তু পরব্রহ্ম ও তঁাহার স্বাংশ ভগবৎস্বরূপগণ যেমন বিভুচিং, জীব সেইরূপ নহে। জীব অনুচিং। পরব্রহ্ম বিস্তীর্ণ জলন্ত অগ্নিরাশির তুল্য; জীব। একটি ক্ষুদ্র স্ফুলিঙ্গের তুল্য। জীব কবশে যে সকল মায়িক দেহ ধারণ করে তাহাদের উৎপত্তি ও বিনাশ আছে। কিন্তু জীবাত্মার জন্মও নাই মৃত্যুও নাই— জীবাত্মা নিত্য। জীবাত্মা সংখ্যায় অনন্ত। জীব শুধু জ্ঞানস্বরূপ নহে, তাহার জ্ঞাতৃত্বও আছে। কিন্তু সে পরব্রহ্মের ন্যায় সর্বজ্ঞ নহে। তাহার জ্ঞান সীমাবদ্ধ। | জীবের কর্তৃত্বও আছে ; কিন্তু তাহা পরমেশ্বরের অধীন। পরব্রহ্ম প্রযােজক কর্তা, জীব প্রযােজ্য কর্তা। পরব্রহ্মের শক্তির সহায়তা ব্যতীত জীব নিজের কর্তৃত্বকে বিকাশ করিতে পারে না। কর্তৃত্ব-বিকাশের ফলে যে কী অনুষ্ঠিত হয় সেই কর্মের দায়িত্ব ঈশ্বরের নহে, জীবের। ঈশ্বর কখনও সেই কর্মের ফল ভােগ করেন না; জীবকেই । কর্মফল ভােগ করিতে হয়। পরব্রহ্ম বা পরমেশ্বর শুধু কর্মের ফল দান করিয়া থাকেন। তিনি জীবকে যে কোনও প্রকার ইচ্ছা হৃদয়ে পোষণ করিবার শক্তি দিয়াছেন। কর্ম করিবার সময়ে জীব সেই শক্তিকে ব্যবহার করে। জীব পরমেশ্বরের অংশ বলিয়া ভগবানের স্বাতন্ত্র্যধর্মের কিয়দংশ জীবের মধ্যেও আছে। পরমেশ্বরের স্বাতন্ত্র বিভু, জীবের স্বাতন্ত্র্য অণু। পরমেশ্বর নিয়ন্তা, জীব নিয়ন্ত্রিত। এইজন্য অবস্থাবিশেষে জীবের অণুস্বাতন্ত্র পরমেশ্বরের বিভুস্বাতন্ত্র দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হইবার যােগ্য। সুতরাং জীবের স্বাতন্ত্র্য থাকিলেও তাহা অবাধ নহে। যে কোনও ইচ্ছা হৃদয়ে পােষণ করিবার শক্তি থাকিলেও সকল ক্ষেত্রে ইচ্ছানুরূপ কাজ করিবার শক্তি জীবের নাই। জীব যে কোনওরূপ ইচ্ছা হৃদয়ে পােষণ করিবে পরমেশ্বর তদন্থরূপ কাজ করিবার শক্তি প্রদান করিবেন, ইহাও আশা করা যায় না। ব্ৰহ্মাণ্ড সৃষ্টি করিতে ইচ্ছা করার শক্তি জীবের আছে; কিন্তু সেই ইচ্ছা কার্যে পরিণত করার