পাতা:Bharatkosh 1st Vol.pdf/৭৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


________________

অচিন্ত্যভেদাভেদবাদ যাহাকে জগৎ বলি, তাহা পরব্রহ্মের মায়াশক্তির পরিণাম। শাস্ত্রে যে সকল ভগবামের কথা বলা হইয়াছে সেইসকল ধাম পরব্রহ্মের চিচ্ছক্তির বিলাস। পরব্রহ্মের পরিকরগণও তাহার চিচ্ছক্তি বা স্বরূপশক্তির মূর্ত বিগ্রহ। যেহেতু জীবজগদাদি সমস্তই পরব্রহ্মের শক্তি সেই হেতু শক্তির সহিত শক্তিমানের যে সম্বন্ধ বিদ্যমান জীব-জগদাদির সহিত পরব্রহ্মেরও সেই সম্বন্ধ স্বীকার্য। অগ্নির সহিত দাহিকাশক্তির ন্যায় পরব্রহ্মের সহিত তাহার শক্তি নিত্য অবিচ্ছেদ্যভাবে বিদ্যমান। এই প্রকার নিত্য অবিচ্ছেদ্য শক্তির নাম স্বাভাবিক শক্তি। স্বাভাবিক শক্তি আগন্তুক শক্তি হইতে পৃথক। অগ্নিদাত্ম প্রাপ্ত লৌহখণ্ডের দাহিকাশক্তি স্বাভাবিক নহে, আগন্তুক। ইহা সকল সময়ে লৌহখণ্ডে থাকে না। কিন্তু পরব্রহ্মের শক্তিসমূহ সর্বদাই পরব্রহ্মে থাকে। কস্তুরীর গন্ধকে যেমন কস্তুরী হইতে পৃথক করা যায় না, দাহিকাশক্তিকে যেমন অগ্নি হইতে পৃথক করা যায় না, সেইরূপ পরব্রহ্মের শক্তিকেও পরব্রহ্ম হইতে পৃথক করা যায় না। শক্তিকে বাদ দিয়া শুধু শক্তিমানকে বস্তু বলা চলে না ; শক্তিমানকে বাদ দিয়া শুধু শক্তিকেও বস্তু বলা যায় না। শক্তি এবং শক্তিমান, এই উভয়ের মিলিত স্বরূপই বস্তুর স্বরূপ। বস্তুটি বিশেষ্য, শক্তিসমূহ তাহার বিশেষণ। স্বাভাবিক বিশেষণযুক্ত বিশেষ্যই বস্তু। আনন্দস্বরূপ পরব্রহ্ম বিশেষ্য, স্বরূপশক্তি, তটস্থা শক্তি, মায়া শক্তি প্রভৃতি তাহার বিশেষণ। পরব্রহ্ম শক্তিমান আনন্দ। প্রশ্ন হইতে পারে যে, বস্তু বলিলেই যদি বিশেষ্য ও বিশেষণের, শক্তিমান ও শক্তির। অবিচ্ছেদ্য সম্বন্ধ বুঝায়, পরব্রহ্ম বলিলেই যদি শক্তিমান আনন্দকে বুঝায়, তাহা হইলে পৃথকভাবে শক্তির নাম উল্লেখ করার প্রয়ােজন কি ? জীবগােস্বামী তাহার সর্বসম্বাদিনীতে এই প্রশ্নের উত্তর প্রদান করিয়াছেন। ( সর্বসম্বাদিনী, পৃ ৩৮)-কোনও কোনও ক্ষেত্রে দেখা যায় যে, মাদির প্রভাবে বস্তুর শক্তি স্তম্ভিত হইলেও বস্তুটি বিনষ্ট হয় না। সাময়িকভাবে অগ্নির দাহিকাশক্তি স্তম্ভিত হইলেও অগ্নিকে বিদ্যমান থাকিতে দেখা যায় ; এইরূপ ক্ষেত্রে শক্তির অনুভবের অভাব হইলেও শক্তিমানের অনুভব থাকে। সুতরাং শক্তিকে শক্তিমান হইতে পৃথক নামে অভিহিত করাই যুক্তিসংগত। শক্তি ও শক্তিমানের অভেদ অবশ্যই স্বীকার্য। যেখানে অগ্নি আছে সেখানে দাহিকা শক্তিও আছে, যেখানে কস্তুরী আছে সেখানে তাহার গন্ধও আছে ; তথাপি শক্তি ও শক্তিমানকে সর্বতােভাবে অভিন্ন বলা যায় না, কারণ শক্তিমানের বাহিরেও অনেক সময়ে শক্তির প্রভাব অনুভূত হয়।