পাতা:Bharatkosh 1st Vol.pdf/৭৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


________________

অচ্ছদ সরােবর শ্রাবস্তী নগরী এই নদীর উপর অবস্থিত ছিল। ইহাকে। পঞ্চ মহানদীর অন্যতম বলা হইত। পালি সাহিত্যে এই। নদীর নাম সুবিখ্যাত। সংস্কৃত বৌদ্ধগ্রন্থে ‘অজিরবতী। এই আকারে উল্লেখ আছে। সম্ভবতঃ ইহাকে ঐরাবতীও। বলা হইত এবং তাহা হইতেই রাপ্তি নামের উদ্ভব। হইয়াছে। রমেশচন্দ্র মজুমদার। অচ্ছেদ সরােবর কাশ্মীরের অন্তর্গত মার্তণ্ড হইতে। ১০ কিলোমিটার ( ছয় মাইল) দূরবর্তী বিখ্যাত সরােবর। বর্তমানে ইহা ‘আচ্ছাবল’ নামে পরিচিত। বাণভট্টের কাদম্বরীতে এই সরােবরের বর্ণনা রহিয়াছে। এই সরােবরের তীরে সিদ্ধাশ্রম অবস্থিত ছিল। ü Nundo Lal Dey, The Geographical Dictionary of Ancient and Mediaeval India, London, 1927. অজ অযােধ্যাপতি সূর্যবংশীয় রাজা, রঘুর পুত্র, দশরথের পিতা ও রামচন্দ্রের পিতামহ। ইনি বিদভরাজের কন্যা ইন্দুমতীকে বিবাহ করেন। একদা আকাশপথে গমনশীল মহর্ষি নারদের বীণাগ্রভাগ হইতে এক দিব্য পুষ্পমাল্য উদ্যানে বিহাররত ইন্দুমতীর বক্ষে নিপতিত হইলে তিনি প্রাণত্যাগ করেন। কালিদাস রঘুবংশ মহাকাব্যের অষ্টম সর্গে পত্নীবিয়ােগে অজবিলাপ বর্ণনা করিয়াছেন। তারাপ্রসন্ন ভট্টাচার্য অজন্টা, অজিঙ্কা ভারতবর্ষের প্রত্নকীর্তিরাজির মধ্যে অজণ্টার (২০৩০' অক্ষাংশ এবং ৭৫”৪৫ দ্রাঘিমাংশ) শৈলখাত (rock-cut) গুহাবলী ভারতীয় চিত্রকলার চরম উৎকর্ষের নিদর্শনরূপে বিশ্ববিশ্রুত। উনবিংশ শতাব্দীর প্রারম্ভে গুহাগুলি নৃতন করিয়া আবিষ্কৃত হয়। চৈনিক পরিব্রাজক হিউএন্-ৎসা এই বৌদ্ধকেন্দ্রের একটি সুন্দর বিবরণ লিপিবদ্ধ করিয়াছিলেন। তাহার পর দীর্ঘকাল অজণ্টার উল্লেখ ইতিহাসে বা ভ্রমণকাহিনীতে প্রায় নাই বলিলেই হয়। | মহারাষ্ট্র রাজ্যের অন্যতম জেলা-সদর ঔরঙ্গাবাদ হইতে প্রায় ১০১ কিলােমিটার ( ৬৩ মাইল ) এবং সেন্টাল রেলওয়ের জলগাও স্টেশনের প্রায় ৫৫ কিলােমিটার ( ৩৪ মাইল) দূরবর্তী ফদাপুর গ্রাম হইতে প্রায় ৬ কিলোমিটার (৪ মাইল) দূরে এই গুহাবলী। পূর্বোক্ত স্থানদ্বয় হইতে নিয়মিত বাস চলাচলের ব্যবস্থা আছে। গুহাগুলি ২৮