পাতা:Vanga Sahitya Parichaya Part 1.djvu/২৭৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Ꮌ© 8 বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয়। গিরি বলে মাগে তোমায় বিদায় করিএ। আখির সলিলমাঝে ছিলাম ডুবিএ॥ তুমি যে মা আমাদের নয়নের তারা। তোমা বিনে ঘর দ্বার অন্ধকার তারা॥ মেনকা হয়েছে অন্ধ তোমার বিহনে। আছে কি না আছ বেঁচে সন্দেহ হয় মনে॥ মানসেতে মা তোমারে করে দরশন। রেখেছি পাষাণ-দেহ পাষাণ-জীবন॥ গৌরী বলেন আর কেন ভুলায় বচনে। আমা প্রতি যত স্নেহ জেনেছি তা মনে॥ পিতা মাতা বর্তমান থাকে যে কন্যার। বৎসরান্তে তত্ত্ব বুঝি করএ তাহার। আমার পতির যদি থাকিত বৈভব। তবে মা বাপের ঠাই থাকিত গৌরব॥ গিরি বলে ওগো উমা ক্ষমা কর মোরে। সকলিত জানি আমি ভুলায় কাহারে॥ গতিশক্তিহীন তব জনক জননী। তা ভেবে কি বাপ মায় হবে অভিমানী॥ কেন্দনা কেন্দন উমা স্থির কর মন। লইতে তোমারে মোর হইল আগমন॥ বলে কএ জামাতারে সম্মত করিএ। ত্বরা করি মাগো তোরে যাইব লইএ॥ “ এত শুনে আনন্দার আনন্দিত মন। শঙ্করের স্থানে গিরি কহেন বিবরণ॥ গৌরীর গমন কথা শুনে গঙ্গাধর। অন্তরে ঔদাস্ত ভেবে করেন উত্তর॥ শিবের বিরহ-ত্ৰাস। হর বলেন ওহে গিরি ইহা হৈতে নারে। দেহ হৈতে প্রাণ বল কেবা দেয় কারে ৷ তোমার দুহিতা আত্মা আমিত সাকার। শিবা লয়ে গেলে শিব হবে শবাকার॥ একবার দক্ষ হৈতে হারাইয়া সতী। যে দুঃখ পেয়েছি তাহ জানেন পাৰ্ব্বতী॥ ভাগ্য হৈতে পাইনু যদি হারা তারাধন। চক্ষের অন্তর তারে করি কি কথন।