বাংলাদেশ গেজেট, অতিরিক্ত, জানুয়ারী ২২, ১৯৯৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

রেজিস্টার্ড নং ডি এ-১

বাংলাদেশ    Government Seal of Bangladesh.svg    গেজেট
 অতিরিক্ত সংখ্যা
 কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রকাশিত



 বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ২২, ১৯৯৭




গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
অর্থ মন্ত্রণালয়
আভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ
(শুল্ক)
প্রজ্ঞাপন

তারিখ, ৩০শে পৌষ, ১৪০৩/১৩ই জানুয়ারী, ১৯৯৭

 এস, আর ও নং ২৩-আইন/৯৭/১৬৯৫/শুল্ক—Customs Act, 1969 (IV of 1969) এর section 219 এ প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এবং উক্ত Act এর section 95 এর sub-section (2) এর clause (b) এর provisio এর বিধান অনুযায়ী National Board of Revenue সম্পূর্ণ রপ্তানীমুখী চামড়াজাত সামগ্রী উৎপাদনকারী শিল্প প্রতিষ্ঠান (স্থানীয় বাজারে বিক্রয়) বিধিমালা, ১৯৯৬ এর নিম্নরূপ অধিকতর সংশোধন করিল, যথা :—

 উপরি-উক্ত বিধিমালার,—

(১) বিধি ১এ উল্লিখিত ”চামড়াজাত সামগ্রী উৎপাদনকারী” শব্দগুলি বিলুপ্ত হইবে;
(২) বিধি ২ এর—
(ক) দফা (ঙ) তে উল্লিখিত ”সম্পূর্ন রপ্তানীমুখী চামড়াজাত সামগ্রী উৎপাদনকারী কোন প্রতিষ্ঠান যে উহার পণ্য” শব্দগুলির পরিবর্তে ”সম্পূর্ন রপ্তানীমুখী শিল্প প্রতিষ্ঠান যাহা উহার পণ্য” শব্দগুলি প্রতিষ্ঠাপিত হইবে;

(খ) দফা (ঙ) এর পর নিম্নরূপ দফা (চ) সংযোজিত হইবে, যথা :—
“(চ) “সম্পূর্ণ রপ্তানীমুখী শিল্প প্রতিষ্ঠান” অর্থ এমন কোন শিল্প প্রতিষ্ঠান যাহা তৎকর্তৃক প্রস্তুতকৃত বা উৎপাদিত সকল পণ্য বিদেশে রপ্তানি করে এবং উক্ত পণ্যের কোন অংশ দেশের অভত্যন্তরে ব্যবহার বা ভোগের জন্য সরবরাহ করে না।”
৩) বিধি ৩ এর উপবিধি (২) এর দফা (খ) তে উল্লিখিত “১০%” সংখ্যা ও চিহ্নটির পরিবর্তে “২০%” সংখ্যা ও চিহ্নটি প্রতিস্থাপিত হইবে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের আদেশক্রমে
আ, মু, মসরুর আহমেদ 

প্রথম সচিব (শুল্ক—রপ্তানী ও বণ্ড)।

মুহাম্মদ রবিউল ইসলাম, উপ-নিয়ন্ত্রক, বাংলাদেশ সরকারী মুদ্রণালয়, ঢাকা কর্তৃক মুদ্রিত।
মোঃ আতায়ুর রহমান, উপ-নিয়ন্ত্রক, বাংলাদেশ ফরমস্‌ ও প্রকাশনী অফিস,
তেজগাঁও, ঢাকা কর্তৃক প্রকাশিত।

এই লেখাটি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের কপিরাইটের অধীন। যদিও কপিরাইট আইন, ২০০০ অনুসারে, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বিশেষ কিছু প্রকাশনা বা তার পুনরুৎপাদন কপিরাইট লঙ্ঘনে অভিযুক্ত হবে না:

৭২ নিম্নলিখিত কার্যগুলি কপিরাইট লংঘন হইবে না, যথা:-
(থ) নিম্নে বর্ণিত বিষয়ের পুনরুৎপাদন অথবা প্রকাশনা, যথা:-
(অ) জাতীয় সংসদ কর্তৃক প্রণীত আইন ব্যতীত সরকারী গেজেটে প্রকাশিত হইয়াছে এমন যে কোন বিষয়;
(আ) সরকার কর্তৃক পুনরুৎপাদন বা প্রকাশ নিষিদ্ধ করা না হইলে, সরকার নিযুক্ত কমিটি, কমিশন, কাউন্সিল, বোর্ড বা অনুরূপ অন্যান্য সংস্থার রিপোর্ট পুনরুৎপাদন বা প্রকাশ;
(ই) ভাষ্য সহকারে পুনরুৎপাদিত বা প্রকাশিত হইয়াছে জাতীয় সংসদ কর্তৃক গৃহীত এমন কোন আইন;
(ঈ) সংশ্লিষ্ট আদালত, ট্রাইব্যুনাল বা অন্যান্য বিচার বিভাগীয় কর্তৃপক্ষ কর্তৃক পুনরুৎপাদন বা প্রকাশনা নিষিদ্ধ করা না হইলে, উক্ত আদালত, ট্রাইব্যুনাল বা বিচার বিভাগীয় কর্তৃপক্ষের রায় বা আদেশ পুনরুৎপাদন বা প্রকাশ;
(দ) নিম্নে বর্ণিত অবস্থায় জাতীয় সংসদ কর্তৃক প্রণীত আইন এবং তদধীনে প্রণীত কোন বিধি অথবা আদেশের যে কোন ভাষায় অনুবাদ তৈরী বা প্রকাশনা, যথা:-
(অ) উক্ত ভাষায় অনুরূপ আইন বা বিধি বা আদেশের অনুবাদ ইতোপূর্বে সরকার কর্তৃক তৈরী বা প্রকাশিত না হওয়া; অথবা
(আ) উক্ত ভাষায় অনুরূপ আইন বা বিধি বা আদেশের অনুবাদ ইতোপূর্বে সরকার কর্তৃক তৈরী ও প্রকাশিত হইয়া থাকিলে, অনুবাদটি জনগণের কাছে বিক্রয়ের জন্য মজুদ নাই:
তবে শর্ত থাকে যে, অনুরূপ অনুবাদের উল্লেখযোগ্য স্থানে এই মর্মে একটি বিবৃতি থাকিতে হইবে যে, অনুবাদটি সরকার কর্তৃক প্রামাণিক মর্মে অনুমোদিত বা গৃহীত হয় নাই;
Dialog-warning.svgএই লেখাটি যারা নিজেদের প্রয়োজনে পুনঃব্যবহার করতে চান, তাঁদের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে, বেশ কিছু কার্য্যের পুনরুৎপাদন নিষিদ্ধ।