বিবিধ কাব্য

উইকিসংকলন থেকে
Jump to navigation Jump to search

 

বিবিধ——কাব্য
মাইকেল মধুসূদন দত্ত

 

সম্পাদক :
শ্রীব্রজেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়
শ্রীসজনীকান্ত দাস


 


 

বঙ্গীয়−সাহিত্য−পরিষৎ
২৪৩৷১, আপার সারকুলার রোড
কলিকাতা


 

 

প্রকাশক
শ্রীরামকমল সিংহ
বঙ্গীয়-সাহিত্য-পরিষৎ

 

ফাল্গুন, ১৩৪৭
চারি অানা

 

মুদ্রাকর—শ্ৰীসৌরীন্দ্রনাথ দাস
শনিরঞ্জন প্রেস, ২৫।২ মোহনবাগান রো, কলিকাতা
৩.২ - ১০।৩।১৯৪১

 



ভূমিকা

 মধুসূদনের সাহিত্য-জীবন নানা কারণে নানা ভাবে খণ্ডিত ও বাধাগ্রস্ত হইয়াছিল। চিঠিপত্রে প্রকাশিত তাঁহার বহুবিধ সঙ্কল্প, পরিণামে সেগুলির বিফলতা এবং তাঁহার বিবিধ অসম্পূর্ণ কাব্য ও কবিতায় তাহার প্রমাণ পাওয়া যায়। তিনি নানা সময়ে বিশেষ উৎসাহের সঙ্গে অনেকগুলি কাব্য ও কবিতা রচনা আরম্ভ করিয়াছিলেন কিন্তু শেষ করিতে পারেন নাই। এই অসম্পূর্ণ কাব্যগুলির মধ্যে তাহার ‘বীরাঙ্গনা কাব্য’ ও নীতিগর্ভ কবিতাবলীই আমাদের বিশেষ আক্ষেপের কারণ হইয়া আছে। বর্ত্তমান সংস্করণ গ্রন্থাবলীর এই বিবিধ খণ্ডটি কবি মধুসূদনের বিরাট্‌ সম্ভাবনার ও বিপুল নৈরাশ্যের নিদর্শন।

 এই বিক্ষিপ্ত কবিতা ও কাব্যাংশগুলি আমরা নানা স্থান হইতে সংগ্রহ করিয়াছি। কবির জীবিতকালে বিভিন্ন সাময়িক-পত্রে ইহাদের কয়েকটি মাত্র প্রকাশিত হইয়াছিল; বাকিগুলি তাঁহার মৃত্যুর পরেই প্রকাশিত হইয়াছে। সাময়িক-পত্রে সবগুলি বাহির হয় নাই। ‘জীবন-চরিতে’ ও ‘মধুস্মৃতি’তে অধিকাংশই স্থান পাইয়াছে। একই কবিতার কোন কোন স্থানে দুইরূপ পাঠ পাওয়া গিয়াছে। কয়েকটি অসম্পূর্ণ কবিতা মধুসূদনের ‘চতুর্দ্দশপদী কবিতাবলী’র ১ম সংস্করণের (১৮৬৬) পরিশিষ্টে “অসমাপ্ত কাব্যাবলি” নামে বাহির হইয়াছিল। দীননাথ সান্যাল-সম্পাদিত ‘চতুর্দশপদী কবিতাবলী’র শেষে একটি অপ্রকাশিত-পূর্ব্ব কবিতা আছে; নগেন্দ্রনাথ সোম সেটি সংগ্রহ করিয়া দিয়াছিলেন। আমরা এই খণ্ডে এই সকলগুলিই একত্র সন্নিবিষ্ট করিলাম। কবিতাগুলিকে যত দূর সম্ভব, কালানুক্রমিক সাজাইবার চেষ্টা করিয়াছি। যে যে স্থান হইতে কবিতাগুলি সংগৃহীত হইয়াছে, নিম্নে তাহার নির্দেশ দিলাম। “যো” বলিতে যোগীন্দ্রনাথ বসু-প্রণীত ‘জীবন-চরিত’ চতুর্থ সংস্করণ এবং “ন” বলিতে নগেন্দ্রনাথ সোম-প্রণীত ‘মধু-স্মৃতি’ বুঝিতে হইবে।

১। বর্ষাকাল যে পৃ. ১০০-১    
২। হিমঋতু পৃ. ১০১    
৩। রিজিয়া পৃ. ৬৭৮-৮০    
৪। কবি-মাতৃভাষা পৃ. ৪৭৭    
৫। আত্ম-বিলাপ —তত্ত্ববোধিনী পত্রিকা, ১৭৮৩ শক, আশ্বিন  
৬। বঙ্গভূমির প্রতি —সোমপ্রকাশ, ১৬ জুন, ১৮৬২  
৭-৮। ভারত-বৃত্তান্ত —দ্রৌপদীস্বয়ম্বর —প্রবাসী, ভাদ্র ১৩১১  
৯।   —মৎস্যগন্ধা —আর্য্যদর্শন, ফাল্গুন ১২৯০, পৃ. ২৮৮
১০। সুভদ্রা-হরণ —চতুর্দ্দশপদী কবিতাবলী, ১ম সংস্করণ, পৃ. ১০১-৪
১১। নীতিগর্ভ কাব্য —ময়ূর ও গৌরী পৃ. ১১৪-৬
১২।   —কাক ও শৃগালী পৃ. ১১৭-৮
১৩।   —রসাল ও স্বর্ণলতিকা পৃ. ১১৮-২২
১৪।   —অশ্ব ও কুরঙ্গ যো. পৃ. ৫৯৪
১৫।   —দেবদৃষ্টি ন. পৃ. ৫২৮-৩২
১৬।   —গদা ও সদা —প্রবাসী, আশ্বিন ১৩১১, পৃ. ২৯৪-৯৫
১৭।   —কুক্কুট ও মণি চতুর্দ্দশপদী, দীননাথ, পৃ.  ৯৮
১৮।   —সূর্য্য ও মৈনাক-গিরি পৃ.  ৯৯-১০১
১৯।   —মেঘ ও চাতক পৃ. ১০২-৪
২০।   —পীড়িত সিংহ ও অন্যান্য পশু পৃ. ১০৫-৬
২১।   —সিংহ ও মশক পৃ.  ৯৫-৭
২২। ঢাকাবাসীদিগের অভিনন্দনের উত্তরে যো. পৃ. ৬০৬-৭
২৩। পুরুলিয়া   জ্যোতিরিঙ্গণ, এপ্রিল ১৮৭২, পৃ. ১১৭
২৪। পরেশনাথ গিরি   আর্য্যদর্শন, আষাঢ় ১২৮১, আশ্বিন ১২৯১
২৫। কবির ধর্ম্মপুত্র   জ্যোতিরিঙ্গণ, নবেম্বর ১৮৭২, পৃ.  ৪০
২৬। পঞ্চকোট গিরি     ন. পৃ. ৫২২
২৭। পঞ্চকোটস্য রাজশ্রী     ন. পৃ. ৫২৩
২৮। পঞ্চকোট-গিরি বিদায়-সঙ্গীত   ন. পৃ. ৫২৩-৪
২৯। সমাধি-লিপি   যো.   পৃ. ৬৩৯
৩০। পাণ্ডব-বিজয়   আর্য্যদর্শন আষাঢ় ১২৯১  
৩১। দুর্য্যোধনের মৃত্যু   চৈত্র ১২৮৯  
৩২। সিংহল-বিজয়   শ্রাবণ ১২৯১  
৩৩। হতাশা-পীড়িত হৃদয়ের দুঃখধ্বনি বৈশাখ, ১২৯১  
৩৪। দেবদানবীয়ম্‌   ফাল্গুন, ১২৯০  
৩৫। জীবিতাবস্থায় অনাদৃত কবিগণের সম্বন্ধে প্রবাসী, ভাদ্র, ১৩১১
৩৬। পণ্ডিতবর শ্রীযুক্ত ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর  

 সন্দেহস্থলে আমরা নিজেদের বুদ্ধিমত পাঠ গ্রহণ করিয়াছি। কোনও কোনও কবিতার স্থানে স্থানে অর্থনির্ণয় কষ্টসাধ্য; অনেক স্থলে স্পষ্ট মুদ্রাকর ও অন্যান্য প্রমাদ আছে। পরিশিষ্টে “দুরূহু শব্দের ব্যাখ্যা”য় সেগুলি প্রদর্শিত হইল। “বর্ষাকাল” ও “হিমঋতু” কবির বাল্যরচনা।

সূচীপত্র
বর্ষাকাল ...
হিমঋতু ...
রিজিয়া ...
কবি-মাতৃভাষা ...
আত্ম-বিলাপ ...
বঙ্গভূমির প্রতি ...
ভারতবৃত্তান্তঃ দ্রৌপদীস্বয়ম্বর ... ১০-১১
ভারতবৃত্তান্তঃ  মৎস্যগন্ধা ... ১২
সুভদ্রা-হরণ ... ১৩
নীতিগর্ভ কাব্যঃ    
 ময়ূর ও গৌরী ... ১৫
 কাক ও শৃগালী ... ১৭
 রসাল ও স্বর্ণ-লতিকা ... ১৮
 অশ্ব ও কুরঙ্গ ... ২১
 দেবদৃষ্টি ... ২৪
 গদা ও সদা ... ২৬
 কুক্কুট ও মণি ... ২৯
 সূর্য্য ও মৈনাক-গিরি ... ৩০
 মেঘ ও চাতক ... ৩২
 পীড়িত সিংহ ও অন্যান্য পশু ... ৩৫
 সিংহ ও মশক ... ৩৬
ঢাকাবাসীদিগের অভিনন্দনের উত্তরে   ৩৮
পুরুলিয়া ... ৩৮
পরেশনাথ গিরি ... ৩৯
কবির ধর্ম্মপুত্র ... ৪০
পঞ্চকোটস্য রাজশ্রী ... ৪১
পঞ্চকোট-গিরি বিদায়-সঙ্গীত ... ৪২
সমাধি-লিপি ... ৪২
পাণ্ডববিজয় ... ৪৩
দুর্য্যোধনের মৃত্যু ... ৪৪
সিংহল-বিজয় ... ৪৬
হতাশা-পীড়িত হৃদয়ের দুঃখধ্বনি ... ৪৭
দেবদানবীয়ম্‌ ... ৪৮
জীবিতাবস্থায় অনাদৃত কবিগণের সম্বন্ধে ... ৪৮
পণ্ডিতবর শ্রীযুক্ত ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর ... ৪৯

দুরূহ শব্দ ও বাক্যাংশের ব্যাখ্যা
  পংক্তি  
বর্ষাকাল: রমণ—পুরুষ।
  দানবাদি দেব,—দানবাদি, দেব, সঙ্গত।
হিমঋতু: হিমন্তের—হেমন্তের (মধুসূদনের প্রয়োগ)।
রিজিয়া: দংশে—দংশ সঙ্গত।
  ২৩ সিন্ধুদেশে—সমুদ্রে।
কবি-মাতৃভাষা:   মধুসূদন-বিরচিত প্রথম চতুর্দ্দশপদী কবিতা। ইহারই সংশোধিত রূপ “বঙ্গ-ভাষা” (‘চতুর্দ্দশপদী কবিতাবলী’, ৩ নং কবিতা)।
আত্ম-বিলাপ: ১২
 

অম্বুমুখে সদ্যঃপাতি—জলের তোড়ে সদ্য সদ্য বিনাশশীল।

  ১৯ সাদে—সাধে।
বঙ্গভূমির প্রতি: ২৫ তামরস—পদ্ম।
দ্রৌপদীস্বয়ম্বর: ১৭ বিকচিত—বিকচ (মধুসূদনের প্রয়োগ)।
  ১৮

দ্বিতীয়—রামায়ণকার বাল্মীকি আদি-কবি বলিয়া মহাভারতকারকে মধুসূদন ‘দ্বিতীয় কমল’ বলিয়াছেন।

সুভদ্রা-হরণ: ৩-১৫ দ্রৌপদীস্বয়ম্বরের প্রায় পুনরুক্তি।
  ২০ শ্রীবরদা—লক্ষ্মী।
ময়ূর ও গৌরী: ৩০ কেশে—মস্তকে।
কাক ও শৃগালী: ২৩ বাস-বসে—রাস রসে হইবে।
অশ্ব ও কুরঙ্গ: ১০ বাগানে—মুদ্রাকর-প্রমাদ; বাখানে হইবে।
  ৩৬ মৃগয়ী—ব্যাধ।
  ৫৪ সাদী—অশ্বারোহী।
গদা ও সদা: ১৭ সিন্ধু অনুসিন্ধু—সুন্দ উপসুন্দ হইবে।
  ৭১ লভিল—লভিলা হইবে।
ঢাকাবাসীদিগের অভিনন্দনের উত্তরে: ১০ কারো—মুদ্রাকর-প্রমাদ; কারে হইবে।
পুরুলিয়া: সরস—সরোবরে।
  ১৪ সত্যতা—সভ্যতা হইবে।
কবির ধর্ম্মপুত্র: ১১ তোলি—তুলিয়া।
পঞ্চকোট গিরি: ১০ তোমায়—তোমারে হইবে।
পঞ্চকোটস্য রাজশ্রী:  

চতুর্থ ও পঞ্চম পংক্তি যথাক্রমে পঞ্চম ও চতুর্থ পংক্তি হইবে।

দুর্য্যোধনের মৃত্যু: ২৫ সর্ব্বভূক্—সর্ব্বভুক হইবে।
  ৪৬-৪৭ নিম্নলিখিত রূপ হইবে—

যে স্তম্ভের বলে শির উঠায় আকাশে
উচ্চ রাজ-অট্টালিকা, সে স্তম্ভের রূপে

জীবিতাবস্থায়...: ওমর—হোমার।

এই লেখাটি বর্তমানে পাবলিক ডোমেইনের আওতাভুক্ত কারণ এটির উৎসস্থল ভারত এবং ভারতীয় কপিরাইট আইন, ১৯৫৭ অনুসারে এর কপিরাইট মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে। লেখকের মৃত্যুর ৬০ বছর পর (স্বনামে ও জীবদ্দশায় প্রকাশিত) বা প্রথম প্রকাশের ৬০ বছর পর (বেনামে বা ছদ্মনামে এবং মরণোত্তর প্রকাশিত) পঞ্জিকাবর্ষের সূচনা থেকে তাঁর সকল রচনার কপিরাইটের মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে যায়। অর্থাৎ ২০১৮ সালে, ১ জানুয়ারি ১৯৫৮ সালের পূর্বে প্রকাশিত (বা পূর্বে মৃত লেখকের) সকল রচনা পাবলিক ডোমেইনের আওতাভুক্ত হবে।