লেখক:উপেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
উপেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়
(১৮৭৯–১৯৫০)
হুগলী জেলার চন্দননগরের গোন্দলপাড়ায় জন্ম। অল্প বয়সে সন্ন্যাস নিয়ে ভারবর্ষের নানা জায়গায় ঘুরে বেড়ান। পরে আবার সংসারে ফিরে আসেন। কিছুদিন শিক্ষকতা করেছিলেন। এই সময়েই 'যুগান্তর' পত্রিকা গোষ্ঠীর সংস্পর্শে আসেন। ১৯০৭ সালে আলিপুর বোমার মামলায় অরবিন্দ ঘোষ, বারীন্দ্রকুমার ঘোষ ও আরও কিছু বিপ্লবীর সঙ্গে উনিও ধরা পড়েন। ১৯০৯ সালে ওঁর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়। ১২ বছর কারাদণ্ড ভোগের পর উনি মুক্তি পান এবং দেশবন্ধì চিতত্রঞ্জন দাশের 'নারায়ণ' পত্রিকার সঙ্গে যুক্ত হন। পরে বারীন্দ্রকুমার ঘোষের সঙ্গে 'বিজলী' পত্রিকা প্রকাশ করেন। এর পর তিনি প্রকাশ করেন বিখ্যাত সাপ্তাহিক 'আত্মশক্তি'। এই সময়ে দেশ-বিরোধী লেখার জন্য ইংরেজ সরকার আবার ওঁকে ৩ বছরের জন্য কারাদণ্ডে দণ্ডিত করে। মুক্তিলাভের পর বিভিন্ন সময়ে তিনি লিবার্টি, অমৃতবাজার পত্রিকা, দৈনিক বসুমতী ইত্যাদি সংবাদপত্রের সঙ্গে সাংবাদিক হিসেবে যুক্ত ছিলেন। জীবনের শেষ ৫ বছর তিনি দৈনিক বসুমতীর সম্পাদক ছিলেন।'উনপঞ্চাশী', 'পথের সন্ধান', 'ধর্ম ও কর্ম', 'স্বাধীন মানুষ', 'জাতির বিড়ম্বনা', 'ভবঘুরের চিঠি', প্রভৃতি। কিন্তু ওঁর শ্রেষ্ঠ বই নিঃসন্দেহে 'নির্বাসিতের আত্মকথা'।


সাহিত্য কর্ম[সম্পাদনা]


এই লেখকের আংশিক বা সব রচনাগুলি বর্তমানে পাবলিক ডোমেইনের আওতাভুক্ত কারণ এটির উৎসস্থল ভারত এবং ভারতীয় কপিরাইট আইন, ১৯৫৭ অনুসারে এর কপিরাইট মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে। লেখকের মৃত্যুর ৬০ বছর পর (স্বনামে ও জীবদ্দশায় প্রকাশিত) বা প্রথম প্রকাশের ৬০ বছর পর (বেনামে বা ছদ্মনামে এবং মরণোত্তর প্রকাশিত) পঞ্জিকাবর্ষের সূচনা থেকে তাঁর সকল রচনার কপিরাইটের মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে যায়। অর্থাৎ ২০১৯ সালে, ১ জানুয়ারি ১৯৫৯ সালের পূর্বে প্রকাশিত (বা পূর্বে মৃত লেখকের) সকল রচনা পাবলিক ডোমেইনের আওতাভুক্ত হবে।