পাতা:অনাথ আশ্রম - ক্ষীরোদপ্রসাদ বিদ্যাবিনোদ.pdf/১৭২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ኣ';'| ,ዳ . . . . বলি বল ? একবার না জেনে জিজ্ঞাসা ক’রে । অপ্ৰস্তুত হয়েছিলেম, এখন জেনে সে কথা । আবার তুললে, হয়ত আমার মুখও দেখবে না। অজয়। একেবারে কেন ? দিন দুই ধরে পৃথীরাজের বীরত্বের গল্পগুলো শোনাও না। তার পরে মনটা নরম করে, গোটা আষ্টেক দশ । টোক গিলে কথাটা পাড় । । কমলা। তুমি কি ঠাওরাও নীরস বীরত্বে । সকলেই মুগ্ধ হয়। যে দিন পৃথীরাজকে আমরা প্রথম দেখি, যে দিন তাঁর বাহুবল সন্দর্শন ক’রে i সকলেই বিস্মিত হয়েছিলে, সেই দিন কৌতুহলচ্ছলে সিংহের কথা উত্থাপন ক’রে বীণাকেযার দ্বিতীয় তুমি দেখতে পাও না,-সেই বীণাকে জিজ্ঞাসা করেছিলেম, বীণো ! তুই এই সিংহহন্ত বীরকে বিবাহ করতে ইচ্ছা করিস ?” সেই ক্ষুদ্র বালিকা আমার মুখের দিকে চেয়ে তা নহ’লে ঘবনের ' Iাতা | কাজ ? সমগ্র জগতের আবালবৃদ্ধবণিতা শুনে । হাসবে। বীর ত পরের কথা - মহাকলঙ্ক | গুরুদেবের বৃদ্ধ বয়সের মহাকলঙ্ক { গমন। মহারাধীগণ একাদশ বার যে রাজ্য । মহাকলঙ্কমহাকলঙ্ক-তারার যুদ্ধে উদ্ধারের উদ্যোগ ক’রে বিফল মনােরথ হয়েছে, - শেষে সেই রাজ্য উদ্ধার করতে একটা মেয়ে । যাবে ? কমলে! রক্ষা কর-এ কলঙ্কে, হাত } হ’তে রক্ষা কর। তারা সমরক্ষেত্রে উপস্থিত হ’লে জগতে বুঝবে যে রাজস্থানে আর পুরুষ নাই। তারার বিবাহ ভিন্ন উপায়ান্তর নাই। এস পৃথীরাজের হস্তে রাজ্যোদ্ধারের ভার ন্যস্ত করে নিশ্চিন্তে অবস্থান করি। কমলা । তারা পারবে না, পৃথীরাজ । পারবে, এ তোমাদের মস্ত ভুল ৷ বাহুবলেই । যদি রাজ্যোদ্ধার হ’ত, তাহলে ভারতকে মুষ্টিমেয় । গুরুগম্ভীর স্বরে বলেছিল, “কমলে ! যে সুদ্ধ আমােদ অনুভবের জন্য জীব সংহার করে, সে | দেবতা হ’লেও তাকে বিবাহ করি না ।” অজয় । সত্যি ? * কমলা। সত্যি না ত কি ? তুমি স্বামী, । তোমার কাছে মিছে কথা কচ্চি ? মনে করেছিলেম, একান্তই তারা যদি না হয়, তাহ’লে বীণাকেও নিদেন সমৰ্পণ করব।-- কমলে! রক্ষা কর-আমাদের মানস পূর্ণ | কর। মহামূল্য বৃত্বদান না করতে পারলে কেমন ক’রে পৃথীরাজের কাছে প্রতিদানের - আশা করি ? কেমন ক’রে মহারাজের রাজ্যো স্কার হয় ? কমলে! যে রাহু বিশ্বব্যাপী বদন । যবনের পদানত হয়ে থাকতে হ’ত না । । অজয় । সে তর্ক আমি করতে ইচ্ছা করি । না । এখন যা বললেম তা কর । কমলা। তোমার আজ্ঞা, আমি যথাসাধ্য চেষ্টা করব-ইতোমধ্যে পৃথীরাজকে আনতে । था | १ांब्रएल डांश श् । - অজয় । তবে ত সকল আশায় জলাঞ্জলি। } | বসে আছি ?-ওই তারা আসছে। আমি । অজয় । তাকে আনতে না পাঠিয়ে কি ? চল্লেম । তুতিয়ে পাতিয়ে, বুঝিয়ে, ভুলিয়ে, ধমকে । ধামকে যাতে পার। [ প্ৰস্থান। ( তারার প্রবেশ ) { তারা। মোর হিয়া কঁপে কেন নামে । 传 ,甸裔传! সরমের কথা -পরিবর্ঘ্য চৰ্ম্ম সাজ, । ব্যাদান ক’রে মহাসূৰ্য্য গ্রাসে উদ্যত, চাদ । কটীতটে বাধি চন্দ্ৰহাস, বুকে বাধি । সেখানে গিয়ে কি করবে ? হতাশপ্ৰাণে । -গুরুদেব তারা সাহসের ডোরে-ছিছিছিছি! সরমের . কে রণসাজে সজ্জিত করেছিলেন। ! কথা। কিন্তু, কি মধুর নাম। নামে যেন ।