পাতা:অমরনাথ (কৃষ্ণচন্দ্র রায় চৌধুরী).pdf/২২৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অমরনাথ । &> * গণেশ। তবে ভাল। আমার একেবারে আগুপুরুষ শুকিয়ে গিছল । তবে আর কি ? তবে নিন। 彎 অমৃত । ন ন না, আমাকে ঐ বিষয়টি মাপ কোর্ভে হবে, তা নৈলে আমার আর আপনাদের এখানে বসা হয় না । ডাক্তার বাবু আচ্ছা মজার লোকটি। . ডাক। কেন ? আপনি আমাকে যেমন বেলেছেন আমিও তো তাই বোলিচি যে, কোদিচ । ( শীতলকে ) আচ্ছা, উনি যদি না খান, তো ওঁকে দিও না । ( গণেশকে জেদ করিতে উদ্যত দেখিয়া ইঙ্গিতে বারণ ) অমৃত। (স্বগত) ডাক্তার যে যথার্থই ক্ষান্ত দিলে, আর যে বড় কিছু বলে না । মদও ক্রমে কমৃতে লাগল। এর পরে বোলবে যা রান্না হয়েছিল সব উঠে গেছে, সুদ্ধ ইড়ির তলায় চাট্টি ভাত লেগে অাছে। কেবল এ টে। মুখ করা। আঃ কেমনই জিনিসটে কাচা তেতুলের মত, কাউকে সাম্নে বোসে কাম্ড়ে খেতে দেখলিই জিভের জল পড়ে । ( প্রকাশ্য ) মাল্ট কি দিশি না ব্রাপ্তি ? ডাক । দিশি । কেন সে কথা কেন ? অমৃত । না বলি ঐ রংটা নাকি লাল, তাই বলি বুঝি ব্রাণ্ডি । শীতল । কেন, ব্রাণ্ডি হলে আপনি খান নাকি ? অমৃত । না না তা নয়। তা খেতে হলে আর ব্রাণ্ডিই বা কি, আর দিশিই বা কি ? তাতে আমার কিছু আপত্তি নেই । ডাক। তা খেয়েই কেন দেখুন না। সত্তি অমৃত বাবু! আপনি না হয় আজকার দিনটে একটু খান। এত দিনের পরে দেখাটা হল। শীতল, দাও এক্টু অমৃত বাবুকে । অমৃত । না, সে কিছু না,-আমি আপন হাতে ঢেলে নিচ্ছি। শীতল একেবারে গ্লাসটি ভোরে এমন ঢালে যে জল দেবার যে থাকে না !