পাতা:আকাশ-প্রদীপ-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/২৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
আকাশ-প্রদীপ

 কেবল ধ্বনির ঘাতে বক্ষস্পন্দে দোলন দুলায়ে
 মনেরে ভুলায়ে
 নিয়ে যায় অস্তিত্বের ইন্দ্রজাল যেই কেন্দ্রস্থলে,
 বোধের প্রত্যুষে যেথা বুদ্ধির প্রদীপ নাহি জ্বলে।


২১।১০।৩৮


বধূ

 ঠাকুর মা দ্রুততালে ছড়া যেত প’ড়ে :—
 ভাবখানা মনে আছে,—“বউ আসে চতুর্দোলা চ’ড়ে
 আম-কাঁঠালের ছায়ে
 গলায় মোতির মালা সোনার চরণচক্র পায়ে।”


 বালকের প্রাণে
 প্রথম সে নারীমন্ত্র-আগমনী গানে
 ছন্দের লাগাল দোল আধোজাগা কল্পনার শিহর দোলায়,
 আঁধার আলোর দ্বন্দ্বে যে প্রদোষে মনেরে ভোলায়,
 সত্য অসত্যের মাঝে লোপ করি সীমা
 দেখা দেয় ছায়ার প্রতিমা।