পাতা:আজ কাল পরশুর গল্প.pdf/১০১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ऐड5ा दू ° दू গড়িয়ে পড়েছিল, সসপ করে একবার লাল টেনে সে মুখটা বন্ধ করে। দেয়। কয়েকটা বাড়ী পরেই হাবোর বাবা দয়ালের খড়ের ঘর। গজেনের সঙ্গে মেয়েকে আসতে দেখে দয়াল ভ্ৰকুট করে তাকায়, কিন্তু গজেন কাছাকাছি এলে তার মুখখান বেশ অমায়িক মনে হয়। 'তেল একটিন দিলি না বাবা ?” ‘দেব দেব। পরশু কি তারাশু নিয়ে আসব সাথে ।” কোটের বা হাতটা বুলিছিল। লড়বড় করে, ডগাটা পকেটে গুজে সে খাল ধারে এগিয়ে যায়। মিলিটারী, সরকারী, আধা-সরকারী আর লাইসেনী নৌকা চলছিল খাল দিয়ে। একটা নৌকাকে সে হাঁক দেয়, জানায় তার পাশ আছে। নৌকা ধারে এসে তাকে তুলে নেয়। কািটবাজারে সমারোহ ব্যাপার। চারিদিকে অস্থায়ী চালাঘরের অরণ্য, মাছির মতো মানুষের ভিড়, নতুন রাস্ত কঁাপিয়ে হরদম। লরীর আনাগোনা। ফাকায় পাহাড় সমান স্তপোকার চালের পচা গন্ধে চারিদিক মাসগুল । হারাধনকে গজেন ক্ষেস্তির ঘরে খুজে বার করে। হারাধন লোকটা বেঁটে ও বলিষ্ঠ, ঘাড়ে-গৰ্দানে এক করা, বয়স প্ৰায় পঞ্চাশ, মাথার চুলে পাক ধরেছে। এই অবেলায় মদ খেয়ে চােখ লাল করে ফেলেছে ৷ মাগী চাই একটা ।” গজেন তাকে খবরাখবর দেবার পর হারাধনা বলে এক টোক মদ গিলে । ছোট ছেলে দিয়ে একদিকে যেমন সুবিধা আছে, অন্যদিকে তেমনি অসুবিধাও অনেক । ছোট ছেলে যে কোন বাড়ী গিয়ে যে কোন S