পাতা:আত্মচরিত (৪র্থ সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/২৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


RYVe শিবনাথ শাস্ত্রীর আত্মচারিত [ ৯ম পরিঃ কথা কহিয়া প্রীত ও চমৎকৃত হইয়া আসিয়াছেন। শুনিয়া দক্ষিণেশ্বরে যাইবার ইচ্ছাটা প্ৰবল হইয়া উঠিল। আমার সেই বন্ধুটিকে সঙ্গে করিয়া একদিন গেলাম। প্ৰথম দর্শনের দিন হইতেই আমার প্রতি রামকৃষ্ণের বিশেষ ভালবাসার লক্ষণ দৃষ্ট হইল। আমিও তাঁহাকে দেখিয়া বিশেষ চমৎকৃত হইলাম। আর কোনও মানুষ ধৰ্ম্মসাধনের জন্য এত ক্লেশ স্বীকার করিয়াছেন কি না, জানি না । রামকৃষ্ণ আমাকে বলিলেন যে, তিনি কালীর মন্দিরে পূজারি ছিলেন। সেখানে অনেক সাধু সন্ন্যাসী আসিতেন। ধৰ্ম্মসাধনাৰ্থ তাহারা যিনি যাহা বলিতেন, সমুদয় তিনি করিয়া দেখিয়াছেন। এমন কি, এইরূপ সাধন করিতে করিতে তিনি ক্ষেপিয়া গিয়াছিলেন, কিছুদিন উন্মাদ-গ্ৰস্ত ছিলেন। তদ্ভিন্ন তাহার একটা পীড়ার সঞ্চার হইয়াছিল যে, তঁাহার ভাবাবেশ হইলেই তিনি সংজ্ঞাহীন হইয়া যাইতেন। এই সংজ্ঞাহীন অবস্থাতে আমি তাহাকে অনেকবার দেখিয়াছি ; এমন কি, অনেক দিন পরে আমাকে দেখিয়া আনন্দে অধীর হইয়া চুটিয়া আসিয়া আমার আলিঙ্গনের মধ্যেই তিনি সংজ্ঞাহীন হইয়া গিয়াছেন। সে যাক। রামকৃষ্ণের সঙ্গে মিশিয়া এই একটা ভাব মনে আসিত যে, ধৰ্ম্ম এক ; রূপ ভিন্ন ভিন্ন মাত্র। ধৰ্ম্মের এই উদারতা ও বিশ্বজনীনতা রামকৃষ্ণ কথায় কথায় ব্যক্ত করিতেন। ইহার একটী নিদর্শন উজ্জ্বলরাপে স্মরণ আছে। একবার আমি দক্ষিণেশ্বরে যাইবার সময় আমার ভবানীপুরন্থ শ্ৰীষ্টীয় পাদরী বন্ধুটিকে সঙ্গে লইয়া গেলাম ; তিনি আমার মুখে রামকৃষ্ণের কথা শুনিয়া তাহাকে দেখিতে গেলেন। আমি গিয়া যেই বলিলাম, “মশাই, এই আমার একটী শ্ৰীষ্টান বন্ধু আপনাকে দেখতে এসেছেন।” অমনি রামকৃষ্ণ প্ৰণত হইয়া মাটীতে মাথা দিয়া বলিলেন, SSBL B BDB BDDD YT YY TDD S SBBDD SLD DB