পাতা:আমার বাল্যকথা - সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

আ মা র বা ল্য ক থা

৪৩

হাতের কায়দা দেখি সবে বলে “বা জী!”
শেখ্যাণ্ড করিতে কিন্তু কেহ নহে রাজী॥
বিহঙ্গের চঞ্চুহাত কম নহে বড়।
ছলা-কলা না জানুক কাজে খুব দড়॥
কেউটে গোখুরা আদি মহা মহা ফণী,
সারসের চঞ্চুহাতে ধোঁড়া যায় বনি।
হস্তীর হস্তটি এ যে মুখেরই লেজুড়,
জানে না অবোধ লোকে তাই বলে শুঁড়॥
খগে নাগে সাক্ষী মানি লেখে তাই শাস্ত্রে—
ভেদ নাই মুখে হাতে, দশনে নখাস্ত্রে॥

মনুয়া।

জাতিতে যদিও বনের টিয়ে
রতন মানিক মনুয়াটি এ॥
ছার কোয়েলিয়া ছার পাপিয়া।
মহুয়াটি মোর লাখ রুপিয়া।
কেবা জানে কুহু কে জানে পিউ।
গাহে রসভরে চাহে যা জিউ॥
কাণে যাহা শুনে দু একবার,
মন থেকে তা নড়ে না আর।

পেন্সিল-প্রকরণ।

লেখনী গুজিয়া কাণে পেন্‌সিল্‌ ধর।
এখন লেখ যা বলি—লেখ “হর হর”॥
পেন্‌সিল্ করিতে হয় অত কি ছুঁচালো?
অতিসূক্ষ্মে কোন কাজ উতরে না ভাল॥