পাতা:আর্য্য-নারী দ্বিতীয় ভাগ.djvu/২৮৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

রাণী ভবানী । নবাবী আমলের শেষভাগে বাঙ্গালার শাসন ও রাজনৈতিকক্ষেত্রে জানকীরাম, মাণিকচাদ, রাজবল্লভ, কৃষ্ণচন্দ্র, জগৎশেঠ, মোহনলাল, নন্দকুমার প্রভৃতি হিন্দুগণের নেতৃত্বই সর্ব প্রধান ছিল । আমাদের আখ্যায়িকার নায়িকা নাটোরের রাণী ভবানীও অনেক পরিমাণেই ইহাদের সহযোগিনী ছিলেন। ( R ) অভিবাণী ভবানীর শ্বশুর রাজা রামজীবন এবং তঁাহার ভ্রাতা রঘুনন্দন নাটোরের জমিদারী ও জমিদার বংশের প্রতিষ্ঠাতা। ইহাদের পিতা কামদেব পুটিয়ার জমিদার-সরকারে গ্রাম্য তহশীলদারের কার্য্য করিতেন। বাল্যকাল হইতেই রামজীবন ও রঘুনন্দন এই জমিদার।সরকারে প্রতিপালিত হন। পুটিয়ার জমিদার দপনারায়ণ বাঙ্গালার রাজস্ব বিভাগের একজন প্রধান কর্ম্মচারী ছিলেন। রঘুনন্দন অত্যন্ত প্রতিভাশালী যুবক ছিলেন। দর্পনারায়ণ হঁহার গুণে সস্তুষ্ট হুইয়া নবাব সরকারে আপনার সহকারী ও প্রতিনিধিরূপে নিযুক্ত করিলেন। বিশেষ কোন রাজকার্য্যে রঘুনন্দনের সহায়তা পাইয়া নবাব মুরসিদকুলিখা তাহার উপর বিশেষ সস্তুষ্ট হইলেন। এই সময় হইতে নবাবসরকারে তঁাহার বিশেষ প্রতিপত্তি হইল এবং তিনি নবাবের প্রিয়পাত্র হইয়া উঠিলেন । পূর্ব হইতেই রঘুনন্দন কিছু কিছু জমিদারী করিতেছিলেন। রাজসাহীর বিদ্রোহী জমিদার উদয়নারায়ণের পরাজয়ের পর সমস্ত রাজসাহীর জমিদারী নবাব রঘুনন্দনকে দিলেন। পুটিয়ার