পাতা:ইংলণ্ডের ডায়েরি - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৩৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ইংলেণ্ডের ডায়েরি তৎপরে সকলে ‘একত্র হইয়া সমাজে যাওয়া গেল। সেখানে তঁহাদের নূতন ছাপাখানা ও র্যাগেড স্কুল (১) দেখা গেল। তৎপরে বাজারে গিয়া অনেক জিনিস কেনা গেল ; কিনিতে প্ৰায় ১২টা বাজিল। তৎপরে পোয়ো স্বামী পিলের বাড়িতে গিয়া আহার করিয়া সুন্দরাম পিলে ও তাহার স্ত্রীর সহিত সাক্ষাৎ করিতে যাওয়া গেল। বেচারা সুন্দরাম পিলে আমাকে অনেক, দিনের পর দেখিয়া বালকের ন্যায় কঁাদিতে লাগিল। তার স্ত্রীটি বড় লক্ষ্মী ; ইচ্ছা হইল তাহার সহিত আলাপ করি ; কিন্তু তামিল জানি না, কি করি! সুন্দরাম পিলে ইণ্টারপ্ৰিটারের কাজ করিতে লাগিলেন। সুন্দরম পিলে বেচারা আমাকে জিনিসপত্র কিনিতে দশ টাকা দিলেন। চিঠিগুলি ডাকে পাঠান গেল। পরে সকলের সঙ্গে দেখা-সাক্ষাৎ করিয়া সাড়ে-চারটার সময় জাহাজে আসা গেল । জাহাজে আসিয়া আর একবার সুন্নান করিয়া দিনের শ্রম নিবারণ করা গেল। আবার সন্ধ্যার সময় জাহাজ छांख्रिष्व् । আজ একটি দৃশ্য দেখিলাম ; যাহা দেখিয়া কিঞ্চিৎ ক্লেশ হইল। জাহাজ মাদ্রাজ বন্দরে ধরিলে এখানকার মুটে ও বোটম্যানগণ জাহাজে উঠিল। ও দেশের এই সব লোকের কাপড় পরিবার রীতি নাই ; একটু একটু নেংটি পরিয়া আছে। দেখিলাম, জাহাজের ইংরাজ কর্মচারী ও অফিসারগণ যে যেখানে পাইতেছে তাহদের পশ্চাদেশে লাথি ও ছড়ি মারিতেছে। বেচারারা মারের জালায় অস্থির, লোক জুটিাইবে কি ! তাহদের এমনি অবস্থা যে, এই প্ৰহারিকে তাহারা আপনাদের উপযুক্ত বলিয়াই গ্ৰহণ করিতেছে! আজি মাত্রাজ হইতে অনেকগুলি ইংরাজ ও বিবি প্যাসেঞ্জার জাহাজে উঠিলেন। আহারের স্থানের চারিটি টেবিল আজ পরিপূর্ণ; রীতিমত স্থানাভাব । যুগলে নৃত্য, গীত, বাস্থ্য চলিতেছে। সকলে বেশ সুখী। বিবিদের এক আধজন বেশ সুন্দরী। ইহাদের অনেকে লঙ্কাদ্বীপে নামিয়া (১) Ragged school-অনাথ ও দরিত্র বালক বালিকাদিগের শিক্ষার জন্য অবৈতনিক বিদ্যালয়।