পাতা:ইঞ্জিল মুকদ্দস্‌.djvu/২৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


[ ১৯ ] সেই আঁখি হইলে রোশান। অএছা হইলে পরে শুন বিবরণ । রোশনি হইবে তেরা বিলকুল তন। লেকিন তোমার আঁখ গরবাদ হইলে । আন্ধেরা থাকিবে তেরা বেবাক শরীলে ॥ ভিতরের রোশ্লি তেরা হইলে আন্ধার । কত বড় সে আন্ধার ভাব একবার। এক শকৃশ দুই জন মনিবের তরে । খেদমত করিবারে কোন মতে নারে ॥ হয় সে একেরে বেসি পেয়ার করিবে । দুসর মনিবে নাহি ভালই বাসিবে। হয় সে একের কামে জাস্তি দেল দিবে। দোসর জনের কামে গাফেলী করিবে ॥ তেমনি এলাহি খোদা ও ধন দৌলত । করিতে না পার এই দুয়ের খেদমৎ। আর এক বাৎ মুই করি যে বয়ান । জীন রাথিবীর তরে হৈও না হয়রাণ ॥ কোন কোন চিজ মুই আজিকা খাইব । কিম্বা কোন চিজ পিয়ে জান বাচাইব ॥ টাকিতে বদন আর কিই বা পিন্ধিবে । দেল বিচে হেন ভাবা গোনা না করিবে ॥ থানা ও বস্তর হৈতে শরীর তোমার । হয় কি না হয় ঢের গুণে বেহেতর ॥ আত্মানে চিড়িয়া পর করছ নজর । না বুনে আনাজ তারা জান বেহুেতর ॥ চিড়িয়া না কাটে সূত কাপড়ের তরে। গোলাতে আনাজ তারা জমা নাহি করে। তউভি তাদের বাপ যিনি বেহেস্তের । হামেশা খোরাক দেখ দেন তাহীদের ॥ চিড়িয়া যে উড়ে যায় আত্মানের পর । তোমরা কি তাঙ্কা হৈতে নহ বেহুেতর ॥ ভাবাগোনা কোরে কেবা তোদের ভিতর । বাঁড়ায়েছে এক হাত আপন উন্মর ॥ পোষাকের তরে কেন ভাবাগোনা কর । খেতের সোশন পরে করহ নজর ॥ সূতা কাটিবারে তারা না জানে কথন । তবু রোজ রোজ তারা বাড়িছে কেমন ॥ কোন কাম কাজ তার