পাতা:ইন্দুমতী - যতীন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায়.pdf/১০০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
৮৬
ইন্দুমতী।

শ্যামল ধান্যেতে পূর্ন,অতি মনোহর।
পবন হিল্লোলে কভু দুলিছে সুন্দর,
সুনীল বারিধি কোলে বীচিমালা মত।
মনে হয় যেন কেহ মখমল দিয়া
মুড়িয়া দিয়াছে সেই বিস্তীর্ণ প্রান্তর।
প্রান্তরের মাঝে মাঝে,দূরে,বহু দূরে,
রহিয়াছে কত গ্রাম নেত্র তৃপ্তিকর।
চারিদিকে কত শত বৃক্ষেতে বেষ্টিত,
সমুজ্জ্বল পত্ররাজি রবির কিরণে।
 বৃক্ষের তলায় বসি জীবন কাহিনী
করিতে করিতে চিন্তা,এল তন্দ্রা ধীরে
নয়ন যুগলে তাঁ’র। পড়িলেন শুয়ে।
শান্তিময়ী নিদ্রাদেবী হরিল চেতনা।
 কতক্ষণ এই রূপে ঘুমায়ে সেখানে,
উঠিলেন জাগি, কা’র কোমল পরশে?
চাহিয়া দেখেন তিনি আছেন শায়িত
অপূর্ব মূরতি এক সন্ন্যাসীর ক্রোড়ে।
ভাবিলেন এও বুঝি স্বপ্ন-প্রতারণা।
উঠিয়া বসিয়া তাই মুছিয়া নয়ন,
চাহিলেন সন্ন্যাসীর মুখ পানে পুনঃ।
কি সুন্দর মুখ তাঁ’র! কি বাৎসল্য ভাব!
চিন্তাপূর্ণ নেত্রযুগ,উন্নত ললাট,