পাতা:ইন্দুমতী - যতীন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায়.pdf/১৯৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
১৮০
ইন্দুমতী

ইন্দুর জীবন গাথা    ইন্দুর মরম ব্যথা
ইন্দুর উচ্ছ্বাসে গান হয়েছে রচিত।
সুদূর অতীতে তা’র    সুখের শান্তির আর
ছিল যেই প্রেমময় প্রীতির জীবন,
কেমনে তা’ নদীতীরে    ভাগিরথী পূত-নীরে
পতির সহিত তা’র হ’ল বিসর্জ্জন।
কেমনে সে মৃত্যু কোলে    ভাসিতে ভাসিতে জলে
নিরাশ্রয়া হ’য়ে পুনঃ পাইল আশ্রয়,
কিন্তুতা’র প্রাণেশ্বর    অতল জলধি ’পর
আঁধারে ভাসিয়া গেল কে জানে কোথায়!
বুকে ধরে কত আশা    কত প্রেম ভালোবাসা
কত আশাপথ চেয়ে এ তিন বৎসর,
কাটাইল কত দুখে    ভারতের বুকে বুকে
করিল সন্ধান, পতি মিলিল না তা’র।
পুণ্য তীর্থ হরিদ্বারে    খুঁজিতেছে দ্বারে দ্বারে,
জাগ্রত ঈশ্বর পতি যদি নাহি পায়,
সুনীল শীতল জলে    কিম্বা পড়ি শিলাতলে,
হৃদয়ের জ্বালা ইন্দু জুড়াবে নিশ্চয়।
 শুনিয়া এ শোক গান    বিষাদে ভরিল প্রাণ
দেবব্রত নেত্র কোণে দেখা দিল জল,
তখন কাতর স্বরে    কহিল সে বালিকারে
“কে শিখা’ল এই গান বলত মা’ বল”!