পাতা:ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের জীবনচরিত ও কবিত্ব.djvu/১৮০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কবিতাসংগ্ৰহ অনুমতি কর ছাগ উদরেতে গিয়া । অন্তে যেন প্রাণ যায় তব নাম নিয়া ॥ মুখে বলি গঙ্গা-নারায়ণ-ব্রহ্ম-হরি । পাটামাস খেতে খেতে বিছানায় মরি ॥ তাহাতেই মুক্তি লাভ মুক্তি নাই অার। নিতান্ত কৃতান্ত হয় পদানত তার ॥ হায় একি অপরূপ বিধাতার খেলা । শুদ্ধ গাত্র কিছুমাত্র নাহি যায় ফেলা ॥ লোম তুলি করি তুলি রঙ্গে রঙ্গ ভরি । । ত্রীরাধা শ্ৰীকৃষ্ণ রূপ সুখে চিত্র করি ॥ চিত্ৰকরে চিত্র করে দিয়া সুক্ষরেখা । দেবমূৰ্ত্তি অবয়ব সব যায় লেখা ॥ নানারূপ যন্ত্র হয় ছাগলের ছালে । O শ্ৰীহরি-গৌরাঙ্গগুণ বাজে তালে তালে ॥ ঢাক কাড়া নহবৎ মৃদঙ্গ মাদোল । তবলা অবলাশ্রিয় ঢোল আর খোল ॥ এক চৰ্ম্মে বহু যন্ত্র বাদ্য তায় কল । নেড়ানেড়ী গোড়াদের ভিক্ষার সম্বল ॥ কোল্পীধারী প্রেমদাস সেবাদাসী নিয়ে । স্বারে দ্বারে ভিক্ষণ করে খঞ্জনী বাজিয়ে ॥ সাধ্য কার এক মুখে মহিমা প্রকাশে । আপনি করেন বাদ্য আপনার নাশে ॥