পাতা:ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের জীবনচরিত ও কবিত্ব.djvu/৮৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গং ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের জীবনচরিত। हिण, ७यन मtश्, किरु अश्थान यमरकज़ cगोब्रांप्ग्रा उांश প্রায় একেবারে ঢাকা পড়িয়া গিয়াছে ; পাচলিওয়ালা ছাড়িয়া তিনি কবির শ্রেণীতে উঠিতে পান নাই। এই অলঙ্কার প্রয়োগে পটুতায় ঈশ্বর গুপ্তের স্থান তার পরেই—এত অনুপ্রাস যমক আর কোন বাঙ্গালীতে ব্যবহার করে না। এখানেও মার্জিত রুচির অভাব জন্য বড় দুঃখ হয়। অনুপ্রাস যমক ৰুে ग#जशे झूया धमऊ कथां श्रांभि दशि না। ইংরেজিতে ইহা বড় কদর্ঘ্য শুনায় বটে, কিন্তু সংস্কৃতে ইহার উপযুক্ত ব্যবহার অনেক সময়েই বড় মধুর। কিছুরই বাহুল্য ভাল নহে—অনুগ্রাম যমকের বাহুল্য বড় কষ্টকর। রাধিয়া ঢাকিয়া, পরিমিত ভাবে ব্যবহার করিতে পারিলে বড় মিঠে। বাঙ্গালাতেও তাই। মধুসূদন দত্ত মধ্যে মধ্যে পদ্যে অনুপ্রাসের ৰ্যবহার করেন,-বড় বুঝিয়া সুঝিয়া, রাখিয়া ঢাকিয়া, ব্যবহার করেন—মধুর হয়। শ্ৰীমা অক্ষয়চন্দ্র সরকার গদ্যে কথন কখন, দুই এক বুদ অনুপ্রাস ছাড়িয়া দেন–রস উছলিয়া উঠে। ঈশ্বর গুপ্তেরও এক একটি অনুপ্রাস বড় মিঠে— বিবিজান চলে যান লবেজান করে। • ईशद्र छूलना नाई। क्रुि श्रेश्वद्र ७:४ब गभग्न थगभग्न নাই, বিষয় অবিষয় নাই, সীমা সরহদ নাই—একবার অনুপ্রাস ধমকের ফোয়ার খুলিলে আর বন্ধ হয় না। আর কোনদিগে দৃষ্টি থাকে না, কেবল শব্দের দিকে। এইরূপ শব্দ ব্যবহারে তিনি অদ্বিতীয়। তিনি পরে প্রতিযোগীশূন্য লুধিপতি।