পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (প্রথম বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/১২৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


SXV) . ঐতিহাসিক চিত্ৰ । অবস্থিতি করিয়া মুর্শিদ কুলি জাফর খাঁ রাজস্বসংক্রান্ত বিষয়ের ক্রমোন্নতিসাধনে তৎপর হইলেন। তিনি ঐ সম্বন্ধে শেঠ মাণিকচাঁদের সহিত পরামর্শ করিলে, তিনি প্রথমতঃ মুর্শিদাবাদে টাকশাল স্থাপনের প্রস্তাব করেন। কারণ, মুর্শিদাবাদ তৎকালে দেওয়ানী বিভাগের মুখ্য স্থান হওয়ায় সৰ্ব্বদাই মুদ্রাদির আবশ্যক হইত। টাকশাল স্থাপিত হইলে অন্য স্থান হইতে মুদ্রাদির আনয়নে কষ্ট স্বীকার করিতে হইবে না। মনে করিয়া দেওয়ান মুর্শিদ মাণিকচাদের প্রস্তাবে সম্মত হইলেন। সঙ্গে মঙ্গে মাণিক চাদের গদীরও উন্নতি হইবে বলিয়া বুঝিতে পারিলেন। সেই পরামর্শানুসারে ১৭০৬ খৃষ্টাব্দে মহিমাপুরের পরপারে গঙ্গাতীরে মুর্শিদাবাদ টাকশাল স্থাপিত হইল ; স্বয়ং শেঠ মাণিকচাঁদ তাহার তত্ত্বাবধানে নিযুক্ত হইলেন। শেঠদিগের গদীর পরপারে টাকশাল স্থাপিত হওয়ায় মাণিকচাদের পক্ষে তাহার পরিদর্শনের যথেষ্ট সুবিধা হইয়াছিল। তঁহার যত্নে মুর্শিদাবাদ টাকশালের দিন দিন শ্ৰীবৃদ্ধি হইতে লাগিল। { যতদিন পৰ্য্যন্ত বাঙ্গলায় মুসল্মান রাজত্বের সামান্যমাত্ৰও অস্তিত্ব ছিল, ততদিন পৰ্য্যন্ত শেঠদিগের সহিত ইহার বিশেষরূপ সম্বন্ধই ছিল। ইংরাজ Vপ্রভৃতি ইউরোপীয় বণিগগণ আপনাদের সুবিধার জন্য এই টাকশাল হইতে মুদ্র মুদ্রিত করাইয়া লইতেন। নবাব সায়েস্তা খাঁর আদেশে বাঙ্গলার অন্যান্য স্থানের ন্যায় কাশিমবাজারের কুঠী সরকার হইতে বাজেয়াপ্ত হয়। কিন্তু নবাব ইব্রাহিম খাঁর আদেশে যদিও ইংরাজগণ বাঙ্গলায় পুনঃপ্রবেশের অধিকার, পাইয়াছিলেন, তথাপি কাশিমবাজারে তঁাহারা রীতিমত কাৰ্য্য আরম্ভ করিতে পারেন নাই। মুর্শিদাবাদ-টাকশাল স্থাপিত হইলে তঁাহারা পুনৰ্ব্বার কাশিমবাজারের কুঠী সুদৃঢ় করিয়া উৎসাহ সহকারে কার্য্য আরম্ভ করেন। কারণ, এই টাঁকশালের জন্য কাশিমবাজার প্রদেশস্থ ব্যবসায়িগণের বিশেষরূপ উপকার ংসাধিত হইয়াছিল। এই সময়ে লণ্ডন কোম্পানী ও ইংলিশ কোম্পানী নামে দুই প্রতিদ্বন্দ্বী ইংরাজ কোম্পানী মিলিত হইয়া ইষ্ট ইণ্ডিয়া নামে একটি মাত্র কোম্পানীতে পরিণত হওয়ায় ইংরাজদিগের ব্যবসায়ের আরও সুবিধা